মেইন ম্যেনু

বিএনপি ভারত বিরোধী নয় : রিপন

বিএনপি ভারত বিরোধী নয়, বরং পার্শ্ববর্তী দেশ হিসেবে তাদের সঙ্গে ‘ইফেক্টিভ’ সম্পর্ক চায় বলে জানিয়েছে দলটির মুখপাত্র ড. আসাদুজ্জামান রিপন।

তিনি বলেন, ‘বিএনপি বাংলাদেশ ও জনগণের স্বার্থে কথা বলে। সেজন্য সীমান্ত হত্যা ও তিস্তা চুক্তি নিয়ে ভারতের কর্মকাণ্ডের সমালোচনা করেছে। তার মানে এই নয় যে, আমরা ভারত বিরোধী।’

রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে বুধবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

রিপন অভিযোগ করে বলেন, ‘সরকারের অনেকে অপপ্রচার করে যে, বিএনপি ভারত বিরোধী। এটি সঠিক নয়। কোনো দেশের রাজনীতিক দেশের স্বার্থ বিলীয়ে দিতে সম্পর্ক করে না। ভারতের বিরুদ্ধে নয়, দেশের স্বার্থের জন্য বিএনপি কথা বলেছে। আমরা ভারতের সঙ্গে সুসম্পর্ক (ইফেক্টিভ) আশা করি।’

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আসন্ন বাংলাদেশ সফরকে স্বাগত জানিয়ে তিনি বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে এদেশের জনগণও তাকে উষ্ণ অভিনন্দন জানাতে প্রস্তুত আছে। মোদির সফরের মধ্যে দিয়ে দু’দেশের জনগণের মধ্যে আরো সুসর্ম্পক হবে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

নরেন্দ্র মোদিকে ‘অত্যন্ত দূরদর্শী সম্পন্ন রাজনীতিক’ আখ্যা দিয়ে বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘তার (নরেন্দ্র মোদি) অভিজ্ঞতার আলোকে এদেশে গণতন্ত্র বিকাশে কাজ করবেন। তিনি আগেই ঘোষণা দিয়েছেন, তার সরকার কোনো বিশেষ দলের সঙ্গে নয়, বাংলাদেশের জনগণের সঙ্গে কাজ করবেন। আমরাও বিশ্বাস করি, মোদির সরকার জনগণের চাওয়া-পাওয়াকে গুরুত্ব দিয়ে কাজ করবেন।’

বিএনপির মুখপাত্র বলেন, সার্কভুক্ত প্রধান দেশ ভারত অন্যতম বড় গণতান্ত্রিক দেশ। তারা পার্শ্ববর্তী সব দেশের সঙ্গে সু-সম্পর্ক উন্নয়ন করতে চান। তিনি (মোদি) নিজেও চান প্রতিবেশী দেশে গণতান্ত্রিক সরকার থাকবে। যেখানে মানুষ তার গণতান্ত্রিক অধিকারগুলো যথাযথভাবে পালন করতে পারবে।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মেজর (অব.) মাহমুদুল হাসান, জলবায়ু সম্পাদক আফজাল এইচ খান, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিব, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম আজাদ, সহ দফতর সম্পাদক আসাদুল করিম শাহীন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।






মন্তব্য চালু নেই