মেইন ম্যেনু

বাংলাদেশে সুখী জীবন যাপনের জন্য কিছু টিপস

ফেসবুকে প্রতিদিন মানুষ কত শত সহস্র স্ট্যাটাসই না দেন। এগুলোর কোনটি তথ্য সমৃদ্ধ, আবার কোনটি নির্মল বিনোদন দেয় মানুষকে। কেউ কেউ খুঁজে পায় জীবনের কিছু নির্দেশনা। তেমনই একটি স্ট্যাটাস এটি। লেখক হয়ত তার ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা থেকে লিখে থাকেন। এই টিপসগুলো তেমনই ফেসবুকে প্রদত্ত একজনের স্ট্যাটাস থেকে নেয়া যা কারো ক্ষেত্রে মিলতে পারে আবার নাও মিলতে পারে। এই মতামত বা টিপসের জন্য আওয়ার নিউজ দায়ী নয়।

[ উল্লেখ্য যে এই টিপসগুলো শুধুই ম্যাংগো পিপলের জন্য প্রযোজ্য। যদি কেউ ম্যাংগো পিপলের উপর উঠতে চান তাদের জন্য সহজলভ্য রাজনীতি, আর্থিক লেনদেনে সরকারী আমলা, ধান্দাবাজি ব্যাবসা, লোভীদের প্রতারনার ফাঁদে ফেলা, মৌলবাদী ধর্মান্ধ জঙ্গি খাতায় নাম লেখানো,  ব্যাংক লোন নিয়ে ফেরৎ না দেয়া সহ নানাবিধ ব্যবস্থা আছে ]

 

টিপস নাম্বার ০১ঃ ঋণ করা থেকে দূরে থাকুন
—————————————————
হোকনা সেটা ব্যাংক লোন বা ক্ষুদ্র ঋণ, এগুলো থেকে দূরে থাকুন। বিশেষত এন জি ও প্রদত্ত ক্ষুদ্র ঋণের জালে একবার আটকালে আপনি সহজে ছাড়া পাবেন না। দীর্ঘ দিন এদের কার্যক্রমের পাশে থেকে দেখেছিতো, যতই সমাজ উদ্ধারের কথা এরা বলুক এদের উদ্দেশ্য কখনো সমাজ উদ্ধার থাকে না।

 

টিপস নাম্বার ০২ঃ  ইন্সুরেন্স থেকে দূরে থাকুন
—————————————————
লাইফ ইন্সুরেন্স বা যেই ইন্সুরেন্স বা বীমাই হোক সালাম দিয়ে দিন দালাল নামক এজেন্ট কে। লাইফ ইন্সুরেন্স করে টাকা ফেরৎ পাবেন কিনা এই চিন্তায়ই আপনার লাইফ কে ভালনারেবল করে দিবেন না।

 

টিপস নাম্বার ০৩ঃ  টাকা ধার দিবেন না
—————————————————
সে যতই আপনার কিকট বন্ধু হোক বা আত্মীয় হোক টাকা ধার দিবেন না। যে যাই মনে করে করুক। আপনার প্রয়োজনে আপনার টাকা আপনার কাজে লাগবে না, উল্টো টেনশনে কাহিল হতে পারেন। এই অধমের বাস্তব জীবনের অভিজ্ঞতা। তাই আমি কাউকে আর টাকা ধার দেই না সে যতই নিকটজন হোক না কেন। এই সুযোগে বলে রাখি আমার কাছে কেউ ধার চেয়ে নিজে বিব্রত হবে না, আমাকেও বিব্রত করবেন না। আমার দেয়া ধারের টাকাগুলো যে আর পাব এ আশাও ছেড়ে দিয়েছি। বিভিন্ন জনের কাছে অংকটাও বিশাল। এত কাছের মানুষ তারা যে হিজড়া বা অন্য কোন উদ্ধারকারীও নিয়োগ করতে পারি না।

 

টিপস নাম্বার ০৪ঃ  কোন কিছু কিনে কখনো সার্ভিসের আশা করবে না, লাকের উপর ছেড়ে দিন
—————————————————
ধরুন একটা মোবাইল কিনলেন বা ফার্নিচার কিনলেন। বিক্রেতা আপনাকে ১ বছর থেকে ১০ বছরের ওয়ারেন্টি দিবে। আপনি এই কথাগুলোকে গালগল্প হিসাবেই বিবেচনা করুন। সার্ভিস বা ওয়ারেন্টি নেয়ার কথা ভুলে যান। জিনিস নষ্ট হলে ধরে নিবেন সেটা আপনার ব্যাড লাক।

 

টিপস নাম্বার ০৫ঃ  সবকিছুকে সন্দেহের দৃষ্টিতে দেখেন
—————————————————
প্রথমেই ধরে নিবেন খারাপ কিছু। যেমন ধরুন কেউ আপনাকে কিছু দিতে চাইল। প্রথমেই তাকে সন্দেহ করুন। খারাপ দিকগুলো চিন্তা করুন। সবকিছুকে ইরিবাচক ভাবে দেখা ভাল গুন কিন্তু এই অধমের এক্ষেত্রে কষ্টদায়ক অনেক অভিজ্ঞতা আছে।

 

টিপস নাম্বার ০৬ঃ  আইনগত বিয়ের বয়স হলেই বিয়ে করে ফেলুন
—————————————————
আপনার আইনগত বিয়ের বয়স হলেই বিয়ে করে ফেলুন, প্রেমকে বিয়েতে রুপান্তর করুন যতশীঘ্রী সম্ভব। ক্যারিয়ার, গার্লফ্রেন্ড, বয়ফ্রেন্ড, খরচ নিয়ে আপনাকে অনেক বেশী টেনশানের জীবন যাপন করতে হতে পারে, যেটা বিয়ে করলে হয়ত কম হবে। একদা জাগাংগীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে সেঞ্চুরিয়ান মানিক ছিল। বাংলাদেশে সম্ভবত কোন কাজে সেই প্রথম সেঞ্চুরিয়ান। এখন বাংলার ঘরে ঘরে মানিকে ছয়লাব। তাই কি দরকার এমন মানিক হওয়ার? সময়কে কাজে লাগান, বিশ্বস্ত ভালবাসায় নাম লেখান, বিয়ে করে ফেলুন।

 

টিপস নাম্বার ০৭ঃ  ফেসবুক, মোবাইল থেকে যতদূর সম্ভব দূরে থাকুন
—————————————————
ফেসবুকে অলস সময় কাটানো পরিহার করুন। এটা আপনার জীবন কে জটিল করে তুলতে পারে। সম্পর্ক গড়ার চেয়ে ভাংতে পারে। মোবাইলেও কম কথা বলুন, প্রয়োজনের বাইরে কথা না বলাই ভাল।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই