মেইন ম্যেনু

ফোনে কথা বলতে গিয়ে বাস খাদে, নিহত ২

দিনাজপুরের ফুলবাড়িতে যাত্রীবাহী বাস খাদে উল্টে দুজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অন্তত ২০ জন। নিহত একজনের নাম পরশুরাম রায় (৫৫)। অপরজনের পরিচয় এখনও জানা যায়নি। রবিবার দুপুর ১২টায় এই দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত পরশুরাম রায় উপজেলার ৫ নম্বর খয়েরবাড়ি ইউনিয়নের কিসমত লালপুর গ্রামের কুমদ চন্দ্র রায়ের ছেলে এবং লক্ষ্মীপুর বাজারের হোটেল ব্যবসায়ী ছিলেন। ঘটনার প্রতিবাদে বিক্ষুদ্ধ এলাকাবাসী দুই ঘণ্টাব্যাপী সড়ক অবরোধ করে রাখে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেন, ফুলবাড়ি থেকে ছেড়ে আসা বিরামপুরগামী যাত্রীবাহী বাস রুমাইয়া পরিবহন (বগুড়া-জ-০৪-০০৫২) ঘটনার সময় লক্ষ্মীপুর নামক স্থানে হোটেল ব্যবসায়ী পরশুরাম রায়কে (৫৫) চাপা দিয়ে সড়কের পশ্চিম পার্শ্বের খাদে পড়ে যায়। এতে পরশুরাম রায়সহ ২০ বছর বয়স্ক এক বাসযাত্রী যুবকের ঘটনাস্থলেই মৃত্যুসহ অন্তত ২০ জন নারী-পুরুষ বাসযাত্রী আহত হন। আহতদের স্থানীয়দের পাশাপাশি ফুলবাড়ির ফায়ার সার্ভিস বাহিনীর সদস্যরা উদ্ধার করে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। এ ঘটনার পরপরই বিক্ষুদ্ধ এলাকাবাসী সড়ক প্রায় দুই ঘন্টাব্যাপী অবরোধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শনসহ চালকের শাস্তি দাবি করেন। তবে সকলের চোখকে ফাঁকি দিয়ে বাসের চালক পালিয়ে যান।

আহত বাসযাত্রীরা বলেন, দিনাজপুর থেকে ছেড়ে বাসটির চালক ফুলবাড়ির রাঙ্গামাটি নামক স্থান থেকেই মোবাইল ফোনে কার সাথে যেন খোশগল্পে মত্ত ছিলেন। যাত্রীরা বিষয়টি তাকে বারবার বলার পর সে মোবাইল ফোন বন্ধ না করে গল্প করার একপর্যায়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ওই পথচারীকে চাপা দেওয়ার পরপরই বাসটি খাদের মধ্যে পড়ে গেলে ওই হতাহতের ঘটনা ঘটেছে।

থানার ওসি শেখ নাসিম হাবিব বলেন, দুর্ঘটার পরপরই পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে হতাহতদেরকে উদ্ধার করে। তবে নিহত অজ্ঞাত যুবকটির নাম-পরিচয় এখনও উদ্ধার করা যায়নি। স্থানীয়রা সড়ক অবরোধ করেননি, দুর্ঘটনা ঘটলে সেখানে যানজট সৃষ্টি হয়। তেমনি সেখানেও তাই হয়েছে। যানজটের কারণে কিছু সময় ধরে যানবাহন চলাচল বন্ধ ছিল।






মন্তব্য চালু নেই