মেইন ম্যেনু

ফুল নয় ককটেল সংবর্ধনা!

শুক্রবার ছিলো জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের অনার্স (সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজে ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেয় ১১হাজার শিক্ষার্থী। বরাবরের মতো নতুন শিক্ষার্থীদের নিজেদের দলে ভেড়াতে বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনের নেতা-কর্মীরা প্রধান ফটকে দাঁড়িয়ে তাদের ফুল দিয়ে বরণ করে। তবে এবার শিক্ষার্থীরা পেয়েছে ককটেলের সংবর্ধনা! শুক্রবার পরীক্ষা শুরুর আগে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজ (উচ্চ মাধ্যমিক শ্রেণির) শাখা ছাত্রলীগ ও ছাত্রশিবিরের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া শুরু হয়। এ সময় শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা দিক-বিদিক ছুটাছুটি শুরু করে।

প্রত্যক্ষদর্শী শিক্ষার্থীরা জানায়, সকাল থেকে শিক্ষার্থীদের অভিনন্দন জানাতে কলেজের প্রধান ফটকে বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনের নেতা-কর্মীরা অবস্থান নেয়। এক পর্যায়ে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের সঙ্গে ছাত্রশিবিরের নেতা-কর্মীদের বাক-বিতণ্ডার সৃষ্টি হয়। এ সময় উভয় পক্ষ অস্ত্র নিয়ে একে অপরকে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া করে। এ সময় ৮/১০টি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। এদিকে ডিগ্রি শাখার ছাত্র সংগঠনের নেতা-কর্মীদেরও অস্ত্রের মহড়া দিতে দেখা যায়।

লাকসাম থেকে আসা শিক্ষার্থী কামাল হোসেন বলেন, ‘বড় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি পরীক্ষা দিতে এসেছি ভালো লেখাপড়া করতে। তবে প্রথম দিন যে রকম দৃশ্য দেখলাম তা ভীতিকর।’

কুমিল্লা কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি খোরশেদ আলম জানান, দুইটি ছাত্র সংগঠনের নেতা-কর্মীদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়।






মন্তব্য চালু নেই