মেইন ম্যেনু

ফুটবলের সঙ্গে দেখা হয়নি ফুটবলারদের

ক্যাম্পটা ফুটবলের। তবে বুধবার ফুটবলের সঙ্গে সাক্ষাৎ হয়নি ফুটবলারদের।

বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের সামনে ব্যস্ত সূচি। আগামী ১১ ও ১৬ জুন বিশ্বকাপ-২০১৮ এর বাছাইপর্বের প্রথম দুটি ম্যাচ খেলতে হবে। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে সেই দুই ম্যাচে তাদের প্রতিপক্ষ যথাক্রমে কিরগিজস্তান ও তাজিকিস্তান। এর আগে আবার রয়েছে দুটি প্রস্তুতিমূলক প্রীতি ম্যাচ। ৩০ মে ও ২ জুন সেই দুই প্রীতি ম্যাচে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ সিঙ্গাপুর ও আফগানিস্তান। জাতীয় ফুটবলারদের বর্তমান সময়টা তাই কঠিন ব্যস্ততার। আসন্ন ৪ ম্যাচকে সামনে রেখে চলছে আবাসিক ক্যাম্পও। তবে ফুটবল ব্যস্ততায় নয়, বুধবার মামুনুল-এনামুল-এমিলি-হেমন্ত-জাহিদ-ওয়াহেদদের দিন কেটেছে অনেকটাই আয়েশী মুডে। এ দিন ফুটবলের সঙ্গে কোনো সম্পর্ক ছিল না তাদের। সময় কেটেছে সাঁতার কেটে কিংবা বিশ্রাম বা ঘুরে-বেড়িয়ে।

সকালে পল্টনস্থ ফার্স হোটেলের সুইমিং পুলে সাঁতার কেটেছেন ফুটবলাররা। বিকেলটা কাটিয়েছেন নিজেদের মতো করেই। কেউ বিশ্রাম নিয়েছেন। কেউ স্বল্প সময়ের জন্য বাইরে বের হয়েছেন। ক্যাম্পে অবস্থানরত দলের একাধিক সদস্যের সঙ্গে কথা বলে জানা গিয়েছে এমনই তথ্যই। সামনে যখন ব্যস্ত সিডিউল, ফুটবল থেকে এ দিন তাহলে দূরে থাকলেন কেন ফুটবলাররা? উত্তরটা দিয়েছেন জাতীয় দলের ম্যানেজার আমিরুল ইসলাম বাবু।

বাবু বলেছেন, ‘বেশ কয়েকদিন অনুশীলন হয়েছে। তাই একদিন খেলোয়াড়দের বিশ্রাম দেওয়া হয়েছে। কাল (বৃহস্পতিবার) আবার মাঠের অনুশীলন হবে। যেখানে জামাল ভুঁইয়া ও রিয়াসাত যোগ দেবে।’

বোঝা গেল মান্যবর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে একের এক ম্যাচ আর গত ক’দিনের ক্যাম্প অনুশীলনের ক্লান্তি ঝরাতেই বুধবার ফুটবলের সঙ্গে আড়ি নিয়েছিলেন ফুটবলাররা। তবে দেশের জন্য সাফল্য বয়ে আনতে আন্তরিকতার কমতি নেই তাদের। বৃহস্পতিবার তাই ফের ফুটবল নিয়ে শেখ জামাল ধানমণ্ডি ক্লাবের মাঠে কঠোর অনুশীলনে নেমে পড়বেন মামুনুলবাহিনী। আর কোচ লোডভিক ডি ক্রুইফ এবার তার প্রবাসী দুই শিষ্যকেই অনুশীলনে পাচ্ছেন। কারণ, ডেনমার্ক থেকে বুধবার রাতেই দেশে ফিরেছেন জামাল ভুঁইয়া। আর ফিলিপাইনে খেলা শেষে রিয়াসাত ইসলামও বৃহস্পতিবার অনুশীলন শুরুর আগেই দেশে পৌঁছে যাবেন বলে জানয়েছেন আমিরুল ইসলাম বাবু।






মন্তব্য চালু নেই