মেইন ম্যেনু

প্রেম করলে দেহ দিতে হয় কেন?

বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দেখেছি প্রেম করলে শারীরিক সম্পর্ক তৈরি করতে হয়। এমনকি মেয়েদের জোর করেও করতে হয়। তাই জানতে চাই প্রেম করলে দেহ দিতে হয় কেন?

জনৈক পাঠক বললেন ,”চরিত্রহীন হলে দেহ দিতে হয় , দেহ পেতে হয় কিন্তু ভালো মানুষের প্রেম ভালবাসায় দেহ নেয়াদেয়া করতে হয়না।” কি যে বলব

বাংলার নবাব নামের এক ফেসবুক পাঠক বলেন, একটি ছেলে ও একটি মেয়ে যখন গোপনে মিলিত হয় এমন কি মোবাইলে একান্তে আলাপের সময় তখন শয়তান তৃতীয় পক্ষহিসেবে তাদের কু মন্ত্রনা দেয় আর সুজোগ পেলে তারা মিলিত হবেই অতএব দূরে থাকাই ভাল।

ফয়সাল এম পল্লব বলেন, প্রেম করলেই দেহ দিতে হয় এটা একধরনের মিথ্যা কথা। আবার দেহ লেনদেন হয়না এটাও মিথ্যা কথা। তবে ছেলে-মেয়ে উভয়ই আন্তরিক ও বিশ্বাসী হলে দেহ দান খারাপ কিছু নয়। এ বিষয়ে বলা চলে ছেলেদের চেয়ে মেয়েরাই উৎসাহী বেশি। অথবা মেয়েদের ছলা-কলায় ছেলেরাই উৎসাহী হয়ে ওঠে বেশি।

মুন্নাফ আলী বলেছেন, চরিত্রহীন হলে দেহ দিতে হয় , দেহ পেতে হয় কিন্তু ভালো মানুষের প্রেম ভালবাসায় দেহ নেয়াদেয়া করতে হয়না। ভালো প্রেমিক প্রেমিকারা বিয়ে সন্তান বাবা মা সমাজ এসব নিয়ে ভাবে দেহ নিয়ে নয়।

উত্তরদাতা বললেন, না, আপনার করা প্রশ্নটি পুরোপুরি সত্য না। প্রেম করলেই যে দেহ দিতে হয় অর্থাৎ শারীরিক সম্পর্কে জড়াতে হয় তা না। ইসলাম ধর্মে বিয়ের আগে প্রেম করাই নিষিদ্ধ।

শারীরিক মিলন মূলত এক ধরনের জৈবিক চাহিদা যা সবার মাঝেই সুপ্ত অবস্থায় থাকে। তাই বলে প্রেম করলেই সবাই বিয়ের আগেই এই শারীরিক চাহিদায় লিপ্ত হয় তা নয়। অনেকে হয়, অনেকে বৈধতার কথা চিন্তা করে হন না। আর প্রেম আসলে একটা পবিত্র জিনিস। একে এভাবে অপবিত্র করা উচিত না।






মন্তব্য চালু নেই