মেইন ম্যেনু

প্রধানমন্ত্রী না হইলেও মন্ত্রী হইয়া যামু : শামীম ওসমান

‘শামীম ওসমান আজীবন নিষিদ্ধ’ একটি ট্যাবলয়েড দৈনিকে প্রকাশিত এমন খবরে ক্ষুব্ধ শামীম ওসমান বলেছেন, তিনি গত তিন বছরের মধ্যে ‘আমেরিকান অ্যাম্বেসির গুষ্টিও মারাননি’। এমনকি দূতাবাসের সামনে দিয়েও নাকি যাননি।
বুধবার রাতে টেলিফোনে একটি অনলাইন নিউজপেপারকে এভাবেই বলেন নারায়ণগঞ্জের ক্ষমতাসীন দলের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান।
ওই পত্রিকার বরাত দিয়ে ‘মার্কিন দূতাবাসের পক্ষ থেকে আপনাকে নাকি যুক্তরাষ্ট্রে আজীবন নিষিদ্ধ করা হয়েছে’ এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘গত ৩ বছরের মধ্যে আমেরিকান অ্যাম্বেসির গুষ্টিও মারাইনি। দূতাবাসের সামনে দিয়েও যাইনি।’

নারায়ণগঞ্জে সাত খুনের ঘটনার পর সারা দেশে সর্বাধিক আলোচিত-সমালোচিত ব্যক্তি শামীম ওসামান বলেন, ‘পত্রিকাগুলো যে কোথা থেকে এসব খবর পায়। লাস্ট থ্রি ইয়ার্সের মধ্যে আমি আমেরিকা অ্যাম্বাসিতে ভিসা অ্যাপ্লাই করি নাই। যেহেতু ভিসা অ্যাপ্লাই করি নাই, রিফিউজড হওয়ারও প্রশ্ন ওঠে না। রিফিউজড হলে পাসপোর্টের মধ্যে রিফিউজড সিল থাকবে। কিন্তু আমার পাসপোর্টে ভিসা রিফিউজের কোনো সিল নাই।’

ট্যাবলয়েড দৈনিকে প্রকাশিত খবরটি সম্পর্কে জানালে তিনি হাসতে হাসতে বলেন, ‘পত্রিকাটির ওপর ফুল চন্দন পড়ুক। ফুল চন্দন পড়ুক এই কারণে যে যুক্তরাষ্ট্র ভারতের মোদিকে নিষিদ্ধ করেছিল; পরে মোদি প্রধানমন্ত্রী হয়ে গেছে। আমি প্রধানমন্ত্রী না হইলেও মন্ত্রী হইয়া যামু!’

তিনি আরো বলেন, ‘ভাই, কই থেইকা এই নিউজ পায়? আল্লাহ, আল্লাহ আপনাদের হাত থেকে কবে যে আমারে বাঁচাইবো? আমি কী বলবো আপনাদের সাংবাদিকদের?’

উল্লেখ্য, গুজরাট দাঙ্গায় সংশ্লিষ্টতা ও সাম্প্রদায়িক রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিযোগে বিজেপি নেতা ও গুজরাট রাজ্যের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ভিসা বাতিল করেছিল যুক্তরাষ্ট্র। এই নরেন্দ্র মোদিই এখন বিপুল জনসমর্থন নিয়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হয়েছেন।
(সংগৃহীত)






মন্তব্য চালু নেই