মেইন ম্যেনু

পুত্রসন্তান চাই, তাই স্ত্রীকে ছোট ভাইয়ের ঘরে পাঠালো স্বামী! অতঃপর একি হলো…

মহিলার বক্তব্য অনুযায়ী, যতবারই তিনি গর্ভধারণ করেন, কন্যাভ্রূণ হওয়ায় প্রতিবারই তাঁকে গর্ভপাতে বাধ্য করা হয়। ২০১০ সালে এক কন্যাসন্তানের জন্ম হলেও, অপুষ্টির কারণে চার বছর বয়সেই মারা যায় শিশুটি।

পুত্রসন্তান চাই, না হলে বংশ লোপ পাবে। তাই ১৮ বছরের বিবাহিত জীবনে বেশ কয়েক বার গর্ভপাত করানো হয় দিল্লির জৈতপুরের এক মহিলা বাসিন্দার। পু্ত্রসন্তানের দাবি ছিল মহিলার স্বামীর।

পারিবারিক ব্যবসা চালিয়ে নিয়ে যেতে হবে, সে কারণেই প্রয়োজন ছিল পুত্রের। কিন্তু তার জন্য স্ত্রীর উপরে অস্বাভাবিক শারীরিক ও মানসিক অত্যাচার করা হতো বলে পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে।

মহিলার বক্তব্য অনুযায়ী, যতবারই তিনি গর্ভধারণ করেন, কন্যাভ্রূণ হওয়ায় প্রতিবারই তাঁকে গর্ভপাতে বাধ্য করা হয়। ২০১০ সালে এক কন্যাসন্তানের জন্ম হলেও, অপুষ্টির কারণে চার বছর বয়সেই মারা যায় শিশুটি।

মহিলার ভাই, তাঁর স্বামীর কাছেই কাজ করতেন, এবং বেশ কিছু টাকা ধার নিয়েছিলেন তার থেকে। এই পরিস্থিতিকে কাজে লাগিয়ে, স্ত্রীকে তাঁর ভাইয়ের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কে বাধ্য করে লোকটি। স্ত্রী ‘না’ বলায় তাঁকে গণধর্ষণের হুমকি দেয়। এও বলে, যে তার কথা না শুনলে মহিলাকে সে বিক্রিও করে দিতে পিছপা হবে না।
স্বামীর এই অত্যাচার থেকে বাঁচার জন্যই, ভাইয়ের সাহায্যে স্বামীকে হত্যা করেন মহিলা। পুলিশসূত্রে জানা গিয়েছে, প্রথমে অচৈতন্য করে, পরে গলায় ফাঁস লাগিয়েই হত্যা করা হয় লোকটিকে।






মন্তব্য চালু নেই