মেইন ম্যেনু

পানির নিচে ৪২ মিনিট থাকার পরও জীবিত !

১৪ বছরের কিশোর ছেলে গত ২৪ এপ্রিল একটি সেতু থেকে খালে পড়ে যায়। ঘটনাটি ইতালির পশ্চিমে মিলান শহরের কাগিওনোতে ঘটেছে। স্থানীয় এক প্রতিবেদনে জানা যায়, ২৪শে এপ্রিলে বিকাল ৪.৫৩ মিনিটে এই ঘটনাটি ঘটেছিল।

কিশোরটির নাম জানা যায় নি। ছেলেটি যখন সেতু থেকে পড়ে যায়, তখন তার সাথের বন্ধুগুলো অস্পষ্ট পানির মধ্যে নেমে তাকে অনুসন্ধানের চেষ্টা করে। তারা খুঁজে না পাবার পর জরুরী পরিষেবা কেন্দ্রকে জানায়।

পরবর্তীতে পরিষেবা কেন্দ্রের একটি দল ৫.৩২ মিনিটে ছেলেকে পানি থেকে উদ্ধার করে। প্রায় ৪২ মিনিট পর ছেলেটিকে উদ্ধার করা হয়। ছেলেটিকে পানি থেকে উদ্ধারের সাথে সাথে হেলিকপ্টারে করে মিলানের সান রাফায়েল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। ডাক্তাররা তাকে এক্সট্রা করপোরিয়াল মেমব্রেন অক্সিজিনেশন প্রক্রিয়ায় ট্রিটমেন্ট করেন। এই ট্রিটমেন্টটি হল, শরীরের বাইরে একটি কৃত্তিম ফুসফুসের মাধ্যমে অক্সিজেনেটেড রক্ত পাম্প করা হয়।

অবিশ্বাস্যভাবে, ছেলেটি মাত্র দশদিনের মধ্যে সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে যায়। তবে, তার ডান পায়ের হাঁটুর নিচে সমস্যা থাকার কারণে তা কর্তিত বা কেটে ফেলা হয়েছে।

স্যান রাফায়েল এর এনেস্থেশিয়া পরিচালক এবং রিসাসিটেশন আলবার্তো Zangrillo বলেন , “এই পুনরুদ্ধারটি ছিল একটি ব্যতিক্রমী ঘটনা। এর ফলে আমাদের আবার হায়পক্সিয়া অর্থাৎ শরীরে পর্যাপ্ত অক্সিজেনের সরবরাহের প্যারামিটার সংশোধিত করতে হবে”।

তিনি হেলিকপ্টারে যে প্যারামেডিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে, এর জন্য তার প্রশংসা করেছেন। ছেলের মা সুস্থতার পর তার ছেলের এই ঘটনাকে ‘অলৌকিক’ বলে আখ্যায়িত করেছেন। তার পিতা হাসপাতালের কর্মীদের তাদের পেশাদারীর জন্য ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

সূত্র: মেট্রো।






মন্তব্য চালু নেই