মেইন ম্যেনু

পর্নোতে আসক্তি কিনা বোঝা যাবে যেসব লক্ষণে!

পর্নো দেখার অভ্যাস অনেকেরই থাকে। কিন্তু অত্যাধিক পরিমানে পর্নো দেখা এক ধরণের রোগ।

এমনটাই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। সম্পর্কে চলে আসার পরেও অনেকেই পর্নো দেখার অভ্যাস ছাড়তে পারে না। হতে পারে আপনার সঙ্গীও সেই দলেই পড়ে। আপনার সঙ্গী ‘‌পর্নো অ্যাডিক্ট’ কিনা বোঝার জন্য কয়েকটি বিষয় খেয়াল রাখতে হবে আপনাকে-
১। কতক্ষণ সময়:‌ প্রথমে দেখে নিন আপনার সঙ্গী দিনের মধ্যে কতক্ষণ পর্ন দেখছেন। আসক্তি বোঝার প্রথম পদক্ষেপ এটি। সারাদিনের কাজের মধ্যেও যদি দীর্ঘক্ষণ আপনার সঙ্গী পর্ন দেখেন তাহেল বুঝবেন আসক্তি জন্মেছে। তাঁকে এখুনি সরিয়ে আনা দরকার। ‌

২। ‌ নোংরামি:‌ আপনি দেখুন কতটা খারাপ পর্ন দেখছেন আপনার সঙ্গী। মানে শিশু পর্নোগ্রাফি ইত্যাদি দেখার অভ্যাস থাকে, তাহলে কিন্তু খুবই খারাপ বিষয়টি। এখুনি এর বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা না নিলে সমস্যা বাড়তে পারে।

৩। বিশেষজ্ঞের সাহায্য:‌ পর্ন দেখার আসক্তি জন্মালে অবশ্যই বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নেওয়া উচিত। মানে, প্রথামিক ভাবে আপনাকে কথা বলতে হবে। সেই কথাই যদি কাজ না হয়, তাহলে আপনাকে অবশ্যই বিশেষজ্ঞের পারমর্শ নিতে হবে।

৪। পাশে দাঁড়ান:‌ মাথায় রাখবেন, যদি বুঝতে পারেন আপনার সঙ্গী পর্নে আসক্ত, তাহলে অবশ্যই আপনার উচিত তাঁর পাশে দাঁড়ানো। এই নিয়ে খোলাখুলি কথা বলার অভ্যাস রাখা খুবই দরকার। সরাসরি কথা বলুন, কেন, কী কারণে সঙ্গী দিনের পর দিন দীর্ঘক্ষণ ধরে পর্ন দেখার অভ্যাস করছেন,সেটা জেনে নিন।






মন্তব্য চালু নেই