মেইন ম্যেনু

পর্দা উঠল এশিয়ান ট্যুরের

সিদ্দিকুর রহমানের হতাশার দিনে চমক দেখিয়েছেন বাংলাদেশের অ্যামেচার গলফার দিল মোহাম্মদ। দেশসেরা গলফার বসুন্ধরা বাংলাদেশের ওপেনের প্রথম দিনে পারের চেয়ে এক শট বেশি খেলেছেন। ৭১ পারের খেলায় প্রথম দিন শেষে ৭২ শট খেলে যৌথভাবে ৩৪তম অবস্থানে রয়েছেন। অ্যামেচার গলফার হয়েও দেশসেরা গলফারের সঙ্গে একই পজিশনে রয়েছেন দিল মোহাম্মদ। ৩৪তম অবস্থানে রয়েছেন বাংলাদেশের আরেক গলফার সজীব আলী।

তবে পারের সমান শট খেলে ২১তম অবস্থানে রয়েছেন দুলাল হোসেন। কিন্তু বুধবার প্রথম রাউন্ড শেষ করতে পারেননি তিনি। ১৮ হোলের মধ্যে খেলেছেন মাত্র ১২ হোল। বুধবার যেখানে শেষ করেছেন বৃহস্পতিবার সেখান থেকেই আবার শুরু করবেন। পারের চেয়ে দুই শট করে বেশি খেলে যৌথভাবে ৪৯তম অবস্থানে রয়েছেন সায়ুম ও নুরজামাল। আজ পারের চেয়ে ৫ শট করে কম খেলে যৌথভাবে শীর্ষে রয়েছেন সিঙ্গাপুরের মারদান মামত ও যুক্তরাষ্ট্রের ক্যাসে অটল।

দিল মোহাম্মদের জন্য বসুন্ধরা বাংলাদেশ ওপেনের প্রথম দিনটি ছিল স্মরণীয়। কেননা এশিয়ান ট্যুরের টুর্নামেন্টে একজন অ্যামেচার গলফারের সুযোগ পাওয়াটাই স্বপ্নের মতো। সেখানে দেশের সেরা গলফারের সমান স্কোর করা তো আর চাট্টিখানি কথা নয়। তবে দিল মোহাম্মদের সৌভাগ্য যে, তিনি ‘টি-অফ’ করেছেন দুপুরে। তখন বৃষ্টি তো ছিলই না, ছিল না অতিরিক্ত গরমও। চমত্কার আবহাওয়াকে কাজে লাগিয়েই বাজিমাত করেছেন এই অ্যামেচার গলফার।

কুর্মিটোলা গলফ কোর্সে বুধবার সকাল সাড়ে ৬টায় বসুন্ধরা বাংলাদেশ ওপেনের পর্দা ওঠে। বিকালে খেলা দেখতে গিয়েছিলেন পৃষ্ঠপোষক বসুন্ধরা গ্রুপের অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাফওয়ান সোবহান। তার সঙ্গে ছিলেন উপদেষ্টা (জনসংযোগ) লে. কর্নেল (অব.) খন্দকার আবদুল ওয়াহেদ, বিসিবির ক্রিকেট অপারেসন্স কমিটির চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক নাঈমুর রহমান দুর্জয় এমপি, উপদেষ্টা (তথ্য ও গণমাধ্যম) মোহাম্মদ আবু তৈয়ব। এসময় এশিয়ান ট্যুরের অ্যাসোসিয়েট ডিরেক্টর (বিজনেস ডেভলপমেন্ট) ইরফান হামিদ ও এশিয়ান ট্যুর ডেভলপমেন্ট ম্যানেজার মোহাম্মদ সারিজের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন বসুন্ধরা গ্রুপের অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক।






মন্তব্য চালু নেই