মেইন ম্যেনু

পরীক্ষার্থীকে ধর্ষণ ও ভিডিও ইন্টারনেটে, ৩ বখাটেকে গণধোলাই

এসএসসি পরীক্ষা শেষে বাড়ি ফেরার পথে যশোরের মনিরামপুরে এক ছাত্রীকে ধর্ষণ ও অন্যজনকে শ্লীলতাহানি করেছে বখাটেরা। গত ১২ ফেব্রুয়ারি গণিত পরীক্ষার দিন এ ঘটনা ঘটলেও মানসম্মান ও বখাটেদের ভয়ে মুখ খোলেনি ভুক্তভোগীরা। বুধবার বখাটেরা ধর্ষণের ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়। এতে এলাকাবাসী ক্ষিপ্ত হয়ে বৃহস্পতিবার তিন বখাটেকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে। ঘটনার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার দুপুরে স্কুলের শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন করেছে।

স্থানীয়রা জানান, গত ১২ ফেব্রুয়ারি দুপুর দুইটার দিকে গণিত পরীক্ষা শেষে মনিরামপুরের দুই এসএসসি পরীক্ষার্থী বাড়ি ফিরছিল। পথে উপজেলার বেগারিতলা এলাকার নিমতলায় চালকিডাঙ্গা গ্রামের রুস্তম আলী দফাদারের ছেলে এয়াকুব আলী, টুনিয়াঘরা গ্রামের মৃত নূর আলী বিশ্বাসের ছেলে ইসরাফিল আলম, একই গ্রামের মৃত আজিজুর রহমানের ছেলে আল-আমিন, মুরাদ হোসেনের ছেলে ইমন হোসেন ও আজিজুর রহমানের ছেলে আলমগীর হোসেন তাদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে পাশের একটি বাগানে নিয়ে যায়। সেখানে দুই পরীক্ষার্থীর মধ্যে একজনকে এয়াকুব আলী ধর্ষণ করে এবং অন্যরা অপর ছাত্রীকে শ্লীলতাহানি করে।

এ ঘটনায় মুখ খুললে তাদের মোবাইলে ধারণকৃত ধর্ষণ ভিডিও ফুটেজ ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়াসহ প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেওয়া হয়। এজন্য নির্যাতিতরা ভয়ে চুপ থাকে। এরপর গত বুধবার বখাটেরা ওই ভিডিও ফুটেজ ইন্টারনেটে ছেড়ে দিলে এলাকায় তোলপাড়ের সৃষ্টি হয়।

ইউপি চেয়ারম্যান আবদুর রাজ্জাক জানান, এলাকাবাসী তিন বখাটেকে ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে আনলে তিনি তাদের পুলিশে সোপর্দ করেন।

মনিরামপুর থানার ওসি বিপ্লব কুমার নাথ জানান, এ ব্যাপারে ভুক্তভোগীরা সন্ধ্যায় থানায় এসেছেন এবং ওই পাঁচ বখাটেকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন।

এদিকে, দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে বৃহস্পতিবার দুপুরে স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা যশোর-সাতক্ষীরা মহাসড়কের চালকিডাঙ্গা বাজারে ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন করে।






মন্তব্য চালু নেই