মেইন ম্যেনু

নায়িকা হয়েও এই অভ্যাসটা ছাড়তে পারেননি সোহিনী!

সোহিনী সরকার এই মুহূর্তে বাংলার প্রথম সারির অভিনেত্রী ও নায়িকা। ‘স্টার’ বা ‘তারকা’ শব্দটা তার নামের আগে বসলেও একটি বিশেষ অভ্যাস কিন্তু রয়ে গিয়েছে। বাংলার দর্শক সোহিনী সরকারকে চেনেন টেলিভিশন ও চলচ্চিত্র নায়িকা হিসেবে।

কিন্তু সোহিনী তার আগে বহু বছর থিয়েটার করেছেন। বলা যায়, থিয়েটার ওর প্যাশন। এই প্যাশন থেকেই কিন্তু ছবির কাজের ব্যস্ত শিডিউল সামলে তিনি থিয়েটারটাও চালিয়ে যাচ্ছেন পাশাপাশি। সম্প্রতি বেহালা বাতায়ন-এর ‘অবয়ব’ নাটকটিতে অভিনয় করছেন তিনি।

গতকাল ২২ মার্চ ওই নাটকেরই শো ছিল রবীন্দ্রসদনে। আর সেখানেই

ধরা পড়ল এই সোহিনীর এই অভ্যাসটি। আসলে থিয়েটার হোক বা চলচ্চিত্র, যে কোনও মাধ্যমেরই একটি নির্দিষ্ট ডিসিপ্লিন আছে। থিয়েটারের ক্ষেত্রে সেটা অনেকটা বেশিই মেনে চলতে হয় কুশীলবদের কারণ টিমটা থাকে ছোট। নাটকের ‘প্রপস’ অর্থাত্‍ যে বস্তুগুলি ব্যবহার হয় মঞ্চে, সেগুলো গুছিয়ে রাখাটা একটা বড় দায়িত্ব।

মূলত এগুলির দায়িত্ব নেন টিমেরই কোনও সদস্য যিনি অভিনয় করছেন না, ব্যাকস্টেজ ম্যানেজ করছেন। কিন্তু অভিনেতা বা অভিনেত্রীরও দায়িত্ব থাকে তিনি নিজে যে প্রপস ব্যবহার করেছেন, শো-এর শেষে সেগুলি গুছিয়ে তুলে রাখা প্রপস ট্রাঙ্কে। সেলিব্রেটেড হয়ে গেলে এই অভ্যাসটা অনেক অভিনেতা-অভিনেত্রীই ত্যাগ করেন। কিন্তু সোহিনী এই অভ্যাসটি এখনও ছাড়েননি।

গতকাল ‘অবয়ব’-এর শোয়ের শেষে যখন সোহিনীর সঙ্গে দেখা করতে যায়, তখন মিষ্টি হেসে নায়িকা বলেন, ‘কথা বলছি দাঁড়ান, আগে একটু প্রপসটা গুছিয়ে নিই।’ আপাতদৃষ্টিতে তুচ্ছ ঘটনা মনে হতে পারে কিন্তু যারা থিয়েটারের সঙ্গে সম্পৃক্ত, তারা জানেন এটা একজন সত্যিকারের থিয়েটার কর্মীর অভ্যাস। সংবাদমাধ্যমের কাছে, দর্শকদের কাছে তিনি ‘তারকা’ কিন্তু থিয়েটারের মঞ্চে তার প্রথম পরিচয় তিনি একজন থিয়েটার-কর্মী। সোহিনী সেটা ভোলেননি।






মন্তব্য চালু নেই