মেইন ম্যেনু

নবাগত চিত্রনায়িকা অধরা

নেত্রকোণার মেয়ে অধরা। ঢালিউড সিনেমায় নতুন নায়িকাদের তালিকায় যোগ হয়েছে এ নামটি। স্কুল জীবন থেকেই তিনি একক অভিনয় এবং দলীয় নাটক করতেন। ছোটবেলা থেকেই সিনেমা দেখাটা ভীষণ পছন্দ তার। এক দিন বাসায় শাবনূর-শাকিব জুটির প্রাণের স্বামী শিরোনামের সিনেমাটি দেখে অধরার মনে বাসা বাঁধে সিনেমার নায়িকা হওয়ার।

সেই স্বপ্নকে বাস্তবে রূপ দেওয়ার জন্য অধরা খুঁজতে থাকেন নির্মাতা পি এ কাজলকে। একদিন কথা হয় তার সঙ্গে। অধরা ফোনে তাকে বলেন, আমি আপনার সিনেমায় অভিনয় করতে চাই। এ কথা শুনে পি এ কাজল না বলে দেন। কিন্তু এতেই হাল ছাড়ার পাত্রী নন অধরা। নাছড়বান্দার মতো দীর্ঘ একটি বছর লেগে থাকে এ মেয়েটি। কাজলের হাতে তখন কোনো সিনেমা না থাকায়, অধরাকে অন্য এক নির্মাতার হাতে দিতে চায় কাজল। কিন্তু পি এ কাজলের সিনেমা ছাড়া অন্য কারো সিনেমায় কাজই করবেন না এ মেয়েটি।index

পরে সিনেমার নায়িকা হওয়ার জন্য চলচ্চিত্র নির্মাতা সোহানুর রহমান সোহানের ফিল্ম ইনস্টিটিউট ‘ইউনিভার্সাল পারফর্মিং আর্ট’ থেকে প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন এ অভিনেত্রী। এ ছাড়া অভিনয়ের তেমন কোনো অভিজ্ঞতা নেই তার। এভাবে চলতে থাকে কিছু সময়। তারপর বিভিন্নভাবেই অধরাকে পর্যবেক্ষণ করেন।

অধরার চোখ দুটি ক্যামেরার খুব লাগে। এটার কারণে কাজল তার সিনেমার কেন্দ্রীয় চরিত্রে অধরাকে নেওয়ার জন্য আশা প্রকাশ করেন। শর্ত তাকে অভিনয় ভালো করতে হবে। শুধু গ্ল্যামার দিয়ে নায়িকা হওয়া যায় না। তাই নির্মাতা কাজল অভিনয় শেখার জন্য পদাতিক নাট্যদলে ভর্তি করিয়ে দেন অধরাকে। সেখানে ছয় মাস অভিনয়ের ওপর প্রশিক্ষণ নেন তিনি। অবশেষে পি এ কাজলের চোখের দেখা সিনেমায় অভিনয় করার সুযোগ পেলেন। এর মাধ্যমেই অধরার সঙ্গে নায়িকা তকমাটি যুক্ত হলো তার। এ সিনেমায় অধরার বিপরীতে অভিনয় করছেন চিত্রনায়ক সাইমন সাদিক। এভাবেই নায়িকা হওয়ার সব কথা বলেন নবাগত অধরা।

তিনি আরো বলেন, ‘আমি শাবনূর আপুর অভিনয় ফলো করি। আমার ইচ্ছে একদিন শাবনূর আপুর মতোই অভিনয়শিল্পী হব।’

চলতি বছরের ১২ অক্টোবর পুবাইলে চিত্রনায়ক শাকিব খানের বাড়িতে সিনেমাটির শুটিং শুরু হয়েছে। ছবির কাহিনি, সংলাপ, চিত্রনাট্য ও পরিচালনা করছেন পি এ কাজল। রাজধানীর বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম, বান্দরবান, মানিকগঞ্জ, সিলেটসহ দেশের বিভিন্ন লোকেশনে এ সিনেমার শুটিং করার পরিকল্পনা রয়েছে। এ ছাড়া গানের দৃশ্যায়নের জন্য নেপালে যাওয়ার পরিকল্পনাও করেছেন এ পরিচালক।

এ সিনেমায় অধরার চরিত্রটি একজন মধ্যবিত্ত পরিবারের মেয়ে। তার স্বপ্ন তিনি একদিন টিভি তারকা হবেন। ঘটনাক্রমে একদিন গাড়ি দুর্ঘটনায় তার চোখ অন্ধ হয়ে যায়। সিনেমার হিরো তাকে সহাযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেয়। এর পরে তাদের মধ্যে প্রেমের সর্ম্পক গড়ে ওঠে।

কুশলী মাল্টিমিডিয়া প্রোডাকশনের ব্যানারে নির্মিত হচ্ছে চোখের দেখা সিনেমাটি। এ সিনেমার বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করছেন কাজী হায়াৎ, শতাব্দী ওয়াদুদ, আলেকজান্ডার বো, শামস সুমনসহ আরো অনেকে। আইটেম গানসহ এ সিনেমায় মোট পাঁচটি গান রয়েছে। গানগুলোতে কণ্ঠ দিয়েছেন জেমস, সাবিনা ইয়াসমীন, কিশোর, কনা, পড়শী ও আরিফ।

গত ১২ জানুয়ারি ঢাকার মগবাজারে শ্রুতি স্টুডিওতে সাব্বির ও পড়শীর গান রেকর্ডিংয়েরমাধ্যমে এ চলচ্চিত্রের শুভ মহরত অনুষ্ঠিত হয়।






মন্তব্য চালু নেই