মেইন ম্যেনু

দাঁত ভেঙে সুন্দরী !

যত কুসংস্কার দারিদ্র্য মানুষের মধ্যে। ভয়ানক এ কুসংস্কারকে মেনে নিতে হয়, যা গা শিউরে উঠার মতো। দাঁত ভেঙে সুন্দরী হওয়ার ঘটনা এর আগে শোনা না গেলে এবার তা-ই শোনা গেল। আফ্রিকার ইথিওপিয়ায় দরিদ্র মেয়েদের সুন্দরী হওয়া আর পণ পাওয়ার জন্য নিজের দাঁত ভেঙে তাতে ডিস্ক যুক্ত করা হয়ে থাকে। খবর ডেইলি মেইল-এর।

ডেইলি মেইলের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, মোটা অঙ্কের পণ পাওয়া আর সুন্দরী হতে প্রচণ্ড ব্যথা লাগলেও এই কঠিন কাজটি করতে হয় মেয়েদের।

ব্যাপারটি এ রকম, পাত্রকে পেতে একজন মেয়েকে সুন্দর হওয়ার এবং আকর্ষণীয় করার চেষ্টা করতে হয়। একজন মেয়েকে তার নিজের দাঁত ভেঙে তাতে ডিস্ক ঢুকিয়ে নিচের অংশের ঠোঁট তার মধ্যে জড়িয়ে দেয়া হয়। ডিস্কটি দেখতে ক্রিকেট খেলার ব্যাটের মতো।

আফ্রিকার দারিদ্র্যপীড়িত ইথিওপিয়ার সুরি নামক জনগোষ্ঠীর এ কুসংস্কার। বয়ঃসন্ধিকালে অনুষ্ঠানের মাধ্যমে খুব জোরে মেয়েদের বেশির ভাগ দাঁত ভেঙে দেয়া হয়। এতে রক্তে রক্তাক্ত হয়ে যায়। এ অবস্থাতেই ক্রিকেট ব্যাটের মত একটা জিনিস সেখান থেকে বের করা হয়। একে বলা হয় লিপ প্লেট।

লিপ প্লেটের ওপর নির্ভর করে বিয়েতে বাবা-মার পণ পাওয়া। পণ হিসেবে মেলে গরু। আর সেই লোভেই মেয়ের অসহ্য যন্ত্রণা হলেও বাবা-মা তাতেও খুশি। তবে এ উপজাতির ছেলেদের এতেটা কষ্ট হয় না। শরীরে ছুঁচের মাধ্যমে রঙ মাখলেই বিবাহযোগ্য হয়ে যায় ছেলেরা।






মন্তব্য চালু নেই