মেইন ম্যেনু

তবুও জিতলো ধোনির চেন্নাই

মহেন্দ্র সিং ধোনি ভারতীয় ক্রিকেট ইতিহাসে সবচেয়ে সফল অধিনায়ক। কী জিতেননি ধোনি? টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ, ওয়ানডে বিশ্বকাপ, চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি, টেস্ট-ওয়ানডের শীর্ষস্থান, আইপিএল, চ্যাম্পিয়ন্স লিগ টি-টোয়েন্টি সব শিরোপাই ধরা দিয়েছে ধোনির হাতে।
মারাকাটারি ব্যাটিংয়ের প্রতীক ধোনি যেন ভারতীয় ক্রিকেটে আলাদিনের চেরাগ হাতে নিয়ে এসেছেন। যেখানেই হাত দেন সেখানেই সোনা ফলে।
তাকে নিয়ে এত কথার অবতারণা করার কারণ শনিবার পার্থ স্কোরার্সের বিপক্ষে চেন্নাই সুপার কিংসের ম্যাচটির জন্য।
শুরুর দিকে অত্যন্ত ধীরগতিতে রান তোলা দলটি ধোনি নামতেই বদলে গেল ম্যাচের চিত্র। স্কোরবোর্ডে উঠলো ১৫৫ রান। ওই রান টপকাতে গিয়ে পার্থকে থামতে হয়েছে ১৪২/৭ রানে। ১৩ রানে জিতে সেমির কাছাকাছি পৌঁছে গেল চেন্নাই।
টস হেরে ব্যাট করতে নেমে চেন্নাই ১৪ ওভারে ৬৯ রান তুলতেই হারিয়ে ফেলে ৫ উইকেট। বাকি ছয় ওভারে আর কতদূরই বা যেতে পারে ধোনির দল। কিন্তু যেই না ধোনি নামলেন ব্যাট হাতে অমনি পাল্টে গেল ম্যাচের চিত্র। ঝড়ের গতিতে মাত্র ১৬ বলে চার ছক্কায় তুলে দিয়ে এলেন ৩৫ রান।
এই দেখে ধীরলয়ে খেলতে থাকা রবীন্দ্র জাদেজাও হাত খোলা শুরু করলেন। চার-ছক্কা হাঁকিয়ে ২৮ বলে খেললেন ৪৪ রানের ইনিংস। চেন্নাই পেয়ে গেল ১৫৫ রানের লড়াই করার পুঁজি। হগ, টার্নার, আরাফাত, নিলে এবং প্যারিস প্রত্যেকে পেয়েছেন একটি করে উইকেট।
জবাবে পার্থের কোনো ব্যাটসম্যানই নিজেদের ইনিংগুলোকে লম্বা করতে পারেননি। নির্ধারিত ওভারে তাদের থামতে হয়েছে ১৪২/৭ রানে। ২১ বলে সর্বোচ্চ ৩০ রান এসেছে কাল্টার নিলের ব্যাট থেকে। এছাড়া অ্যাডাম ভোজেস ২৪ বলে ২৭ রান করেন। ২০ রানে অশ্বিন ৩টি এবং ২৭ রানে ২ উইকেট পান নেহরা।
রোববার মোহালিতে গ্রুপ ‘বি’তে বাংলাদেশ সময় বিকেল ৪টা ৩০ মিনিটে বার্বাডোজ ট্রাইডেন্টসের মোকাবেলা করবে হোবার্ট হ্যারিকেনস। দিনের অপর ম্যাচে রাত ৮.৩০ মিনিটে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের প্রতিপক্ষ কেপ কোবরাস।






মন্তব্য চালু নেই