মেইন ম্যেনু

ঢাকার বিলবোর্ডে কলকাতার দেব

‘আমি দেব। এই প্রথমবার আসছি বাংলাদেশের রূপালি পর্দায়। আগামী ২৪শে এপ্রিল আমার সাথে দেখা করতে চলে আসুন আপনার প্রিয় প্রেক্ষাগৃহে।’ কলকাতার অভিনেতা দেবের ছবি ও বাণী সমৃদ্ধ এমন একটি বিলবোর্ড শোভা পাচ্ছে রাজধানীর শাহবাগ মোড়ে।

সিনেমা হলে গিয়ে কয়েক বছরের পুরনো চলচ্চিত্র ‘খোকা ৪২০’ দেখার এ আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে খান ব্রাদার্সের পক্ষে। আমন্ত্রণের পর লেখা হয়েছে ওই চলচ্চিত্রের শিল্পীদের তালিকা— ‘বাংলার সুপারস্টার দেব, শুভশ্রী গাংগুলি, নুসরাত জাহান, রজতাভ দত্ত, তাপস পাল অভিনীত’। চলচ্চিত্রটি মুক্তি পাচ্ছে শুক্রবার। পরিবেশক সমিতি থেকে জানা গেছে, ‘খোকা ৪২০’ মুক্তি পাবে ৫০টি হলে। অন্যদিকে, একই দিনে মুক্তি পাচ্ছে নজরুল ইসলাম বাবু পরিচালিত ‘চিনিবিবি’।

পয়লা বৈশাখের আগে থেকে এই বিলবোর্ডটি অনেকের দৃষ্টি কেড়েছে। নানা কারণে বাংলাদেশের সিনেমা হলে ‘খোকা ৪২০’ এর প্রচার কয়েক ধাপ এগিয়ে আছে। মার্চে ঢালিউড কিং শাকিব খানের ‘এই তো প্রেম’ ও বলিউড কিং শাহরুখ খানের ‘ডন ২’ মুক্তি পায় একই সপ্তাহে। ব্যবসার দিক দিয়ে এগিয়ে ছিলেন শাকিব।

এ অবস্থায় ভারতীয় চলচ্চিত্রের প্রচার এটি একটি নতুন কৌশল। তাই দেব শোভা পাচ্ছেন শাহবাগের বিলবোর্ডে। এর আগে ফেব্রুয়ারিতে বাংলাদেশে সফরে এসে দেব সিনেমার জন্য দুই বাংলা এক করে দেওয়ার আবদার করেন। তবে হিন্দি বা ভারতীয় বাংলা চলচ্চিত্র কতটা দর্শক মন জয় করবে তা প্রশ্ন সাপেক্ষ। ‘বিগ বাজেট’ এর কয়েকটি চলচ্চিত্র প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি দেওয়ার পর ভাবা হয়েছিল দর্শকরা ‘হুমড়ি’ খেয়ে পড়বেন। কিন্তু ঘটল উল্টো। শাহরুখ খান, সালমান খান, তাপস পাল, প্রসেনজিৎ ও জিতের চলচ্চিত্র তেমন চলেনি এ দেশের হলে। এবার পরীক্ষা দিচ্ছেন দেব।

সব মিলিয়ে এ শুক্রবারে প্রতিযোগিতা হবে জয় চৌধুরী-মিষ্টি জান্নাত ও দেব-শুভশ্রীর মধ্যে। যদিও আগে মুক্তি পাওয়া ভারতীয় সিনেমাগুলো ভাল চলেনি, তারপরও অনেকে আশঙ্কা করছেন ‘চিনিবিবি’ নিয়ে। কারণ ‘চিনিবিবি’র নায়ক-নায়িকা নতুন ও গ্রামীণ কাহিনী।

তবে হল মালিকদের সূত্রে জানা গেছে, তারা ‘চিনিবিবি’কে এগিয়ে রাখছেন এক দিক দিয়ে। তারা জানান, দেবের সিনেমাটি মুক্তি পেয়েছে বেশ আগে। টেলিভিশন, ইউটিউব, ডিভিডির মাধ্যমে অনেকেই এটি দেখেছেন। এ ক্ষেত্রে নতুন ছবি ‘চিনিবিবি’র প্রতিই দর্শক চাহিদা বেশি। তবে এমন ‘অসম প্রতিযোগিতা’র মুখে না ফেলে দিলে এই সিনেমাটি আরও দর্শক টানতে পারত।

এ দিকে পরিচালক নজরুল ইসলাম বাবু ‘চিনিবিবি’ নিয়ে আশাবাদী। তিনি জানান, এখন পর্যন্ত ৪০টির বেশি প্রেক্ষাগৃহ পেয়েছে সিনেমাটি। ‘খোকা ৪২০’ নিয়ে মোটেও উদ্বিগ্ন নন বাবু। তিনি দ্য রিপোর্টকে বলেন, ‘আমার ছবির গল্পই দর্শক টানবে। গ্রামীণ পটভূমির গল্প সবসময় দেখতে চান দর্শক। আমি তাদের চাহিদার কথা মাথায় রেখে সুন্দর গল্প আর গান নিয়ে দিয়ে সিনেমাটি বানিয়েছি। আশা করছি, তারা হতাশ হবেন না।’

‘চিনিবিবি’র নায়িকা মিষ্টি বললেন, ‘এখন সিনেমার প্রমোশনের কাজ করছি। বৃহস্পতিবারেই কিছু প্রেক্ষাগৃহে এটি মুক্তি পাবে। প্রথমদিন আমি বিভিন্ন হলে উপস্থিত থেকে সবার সঙ্গে সিনেমাটি দেখব।’ একই দিনে দেবের ‘খোকা ৪২০’ মুক্তি সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘এটা কোনো বিষয় নয়। আমার সিনেমার গুণেই মানুষ হলে আসবেন। দেবের পুরনো সিনেমা দেখার আগ্রহ ক’জনের আছে, আমার জানা নেই।’

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের রফতানির বিপরীতে আমদানি নীতিমালার আওতায় ‘খোকা ৪২০’ এনেছে খান ব্রাদার্স। এ সিনেমার বিপরীতে রফতানি করা হয়েছে শাকিব খান-পূর্ণিমা অভিনীত ‘মা আমার স্বর্গ’।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই