মেইন ম্যেনু

জেনে নিন, প্রেমিক-প্রেমিকার আসল রুপ চেনার উপায়

কাউকে বিশ্বাস করাই যেন দায় হয়ে দাঁড়িয়েছে আজকাল। ভালোবাসার সম্পর্ক ইদানিং যেন ছেলেখেলা হয়ে গিয়েছে। যে যার ইচ্ছা মত সম্পর্ক ভাঙছে এক মুহূর্তে, আবার পর মুহূর্তেই নতুন কারো সাথে গড়ছে। মুখে যে যতই ভালোবাসার কথা বলুক, প্রতারনা করার বেলায় সেসব কথা মনেই থাকছে না কারো। ‘সারাজীবন থাকবো’, ‘বিয়ে করবো’ এসব কথা বলা তো বেশ সহজ। কিন্তু এই অঙ্গীকার গুলো রক্ষা করতে পারছে কয়জন?
আর এই প্রতারনার জালে পা ফেলে নিজের জীবন নষ্ট করছেন অনেক নারী-পুরুষ। বিয়ে করে ঘর বাঁধার আশায় সঙ্গীকে বিশ্বাস করে নিজেকে বিলিয়ে দিচ্ছেন ভালোবাসার জন্য। কিন্তু সেই বিশ্বস্ত সঙ্গীটিই সুযোগ বুঝে তাকে একা ফেলে রেখে সম্পর্ক ভেঙ্গে ফেলছে। তাহলে কিভাবে বুঝবেন আপনার প্রেমিক-প্রেমিকার সাথে আপনার সম্পর্ক বিয়ে পর্যন্ত গড়াবে কিনা? সে আসলে কি চায়? আসুন তার আসল রুপ চেনার কিছু উপায় জেনে নেয়া যাক।

১।আচরণ পরিবর্তন
এক রাতেই ১০ বার ফোন দিয়ে পরের রাতেই উধাও! কিংবা একদিন এক ঘন্টা গল্প করে আবার কয়েকদিন কোনো খবর নেই! এই ধরনের নারী-পুরুষ সাধারনত বিয়ের মতো এতো বড় দায়িত্ব নিজের কাঁধে চাপাতে চায় না। সম্পর্কের একটু গা ছাড়া প্রকৃতির এই নারী-পুরুষ বেশ আগ্রহ নিয়ে প্রেমের সম্পর্কে জড়ালেও সেই সম্পর্ককে বিয়ের পরিণতি দিতে চায় না সহজে।

২।লুকোচুরি
যে ধরনের প্রেমিক-প্রেমিকারা সম্পর্ক প্রকাশ করতে লুকোচুরি করে তারা সাধারনত বিয়ে করতে চায় না। হঠাৎ চলার পথে বন্ধুর সাথে দেখা হয়ে গেলে সে আপনার হাত ছেড়ে দিয়ে দূরে সরে গেলে, কিংবা ফেসবুক থেকে আপনার সাথে ট্যাগ হয়ে যাওয়া ছবি কারণ ছাড়াই আনট্যাগ করে দিলে আপনি আগেই সাবধান হয়ে যান। সম্পর্কের ক্ষেত্রে সৎ থাকার ইচ্ছা থাকলে আপনার প্রেমিক-প্রেমিকারা আপনাকে তার পরিবার ও বন্ধুদের সাথে পরিচয় করিয়ে দেয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করবে এবং আপনাদের সম্পর্ক নিয়ে লুকোচুরি করবে না।

৩।প্রাক্তন সব প্রেমিক-প্রেমিকাই খারাপ ছিলো
যে নারী-পুরুষ আপনাকে বুঝাতে চাইবে যে তার আগের সব গুলো সম্পর্কের ক্ষেত্রে প্রেমিক-প্রেমিকাই দোষী ছিলো কিংবা খারাপ ছিলো, তাদের থেকে সাবধান থাকাই ভালো। কারণ এই ধরনের নারী-পুরুষদের বিশ্বাস করাটা বোকামি ছাড়া আর কিছুই নয়। সেদিন দূরে নয় যেদিন আপনার এই প্রেমিক-প্রেমিকাই তার ভবিষ্যত প্রেমিক-প্রেমিকার কাছে আপনার নামে বদনাম করবে এবং নিজের ভুল স্বীকার করবে না। এধরনের নারী-পুরুষরা সাধারণত ভালোবাসার ক্ষেত্রে সৎ হয় না এবং বিয়ের সম্পর্কে নিজেকে জড়াতে চায় না সহজে।

৪।শারীরিক সম্পর্কে বেশি আগ্রহী
প্রেমের ক্ষেত্রে যারা শারীরিক সম্পর্কের ব্যাপারে বেশি আগ্রহী থাকে, নির্জন স্থানে অথবা খালি বাসায় নিয়ে যাওয়ার প্রস্তাব দেয়- তাদের থেকে দূরত্ব বজায় রাখুন। এ ধরণের নারী-পুরুষ বিয়ের আগেই শারীরিক সম্পর্কে আগ্রহী থাকে কারণ তারা বিয়ের জন্য অপেক্ষা করতে চায় না। কিছুদিন সময় কাটিয়ে সুযোগ বুঝে সটকে পড়াই থাকে তাদের উদ্দেশ্য। অনেক সময়ে এধরণের নারী-পুরুষরা বেশ বড় ধরনের বিপদের কারণ হয়ে দাঁড়ায়।






মন্তব্য চালু নেই