মেইন ম্যেনু

জীবন পাবে ৪০০০ বছরের পুরনো মমি!‌

ভারতের কলকাতা যাদুঘরে রাখা মমিটির বয়স প্রায় ৪০০০ বছর। একটি বিশেষভাবে তৈরি কাচের বাক্সে রাখা রয়েছে মমিটি।

কিন্তু অক্ষত অবস্থায় রাখার জন্য তা যথেষ্ট নয়। তাই অতিদ্রুত এই মমি নতুন করে সংরক্ষণের নির্দেশ দিয়েছেন দেশটির কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। এ জন্য লখনউয়ের ন্যাশনাল মিউজিয়াম অ্যান্ড ন্যাশনাল রিসার্চ ল্যাবরেটরি ফর কনজারভেশনের সাহায্য চাইবে কলকাতার ইন্ডিয়ান মিউজিয়াম। আর এ কাজে সাহায্য করবে মুম্বইয়ের ছত্রপতি শিবাজি মহারাজ বাস্তু সংগ্রহালয়ের বিশেষজ্ঞ দলও।

জানা যায়, ১৮৩৪ সালে কলকাতায় এই যাদুঘর প্রতিষ্ঠা করে এশিয়াটিক সোসাইটি। এশিয়াটিক সোসাইটিকেই এই মমি উপহার দেওয়া হয়। ১৮৮২ সালে জাহাজে চাপিয়ে সেটিকে কলকাতায় আনা হয়। জাহাজের কর্মীরা যদিও মমিটিকে আনতে রাজি হননি। পরে এক অফিসারের হস্তক্ষেপে ব্যাপারটা মেটে। মিশরের গুরভাহ্‌তে এক রাজার সমাধি থেকে মেলে এই মমি। মমিটির পচন ধরে মুখের মাংস শুকিয়ে হাড় বেরিয়ে গেছে। মুখোশটা বুকের ওপর রাখা। হাড়গোড়ও জীর্ণ। বয়সের ছাপ স্পষ্ট। শনিবার এই অবস্থা দেখে চিন্তিত দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী এম জে আকবর। যেহেতু ইউরোপ, আমেরিকার বাইরে মাত্র কয়েকটি দেশের রয়েছে এই মিশরীয় মমি। তার মধ্যে ভারত অন্যতম। ভারতের ৬টি যাদুঘরে রয়েছে এই মমি।






মন্তব্য চালু নেই