মেইন ম্যেনু

ছিনতাইয়ের অভিযোগে কাউন্সিলরকে গণধোলাই

কিশোরগঞ্জ পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আশরাফুল আলম শামীমকে মোটরসাইকেল ছিনতাইয়ের অভিযোগে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে।

শুক্রবার সকালে বিন্নাটির মোড়ে তাকে পাকড়াও করে লোকজন। পরে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করা হয়।

গুরুতর আহত অবস্থায় শামীমকে কিশোরগঞ্জ জেলা সদর হাসপাতালে পুলিশি পাহারায় চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

কিশোরগঞ্জ মডেল থানা পুলিশ জানায়, শুক্রবার সকাল ১১টার দিকে সদর উপজেলার কাতিয়ারচর এলাকার মাদ্রাসা শিক্ষক মিজানুর রহমান মোটরসাইকেল নিয়ে কিশোরগঞ্জ-ভৈরব সড়ক দিয়ে নান্দলা এলাকার বড়িবাড়ি এতিমখানা মাদ্রাসায় যাচ্ছিলেন।

এসময় নতুন জেলখানা মোড় এলাকায় কাউন্সিলর শামীম তাকে লিফট দিতে বললে ওই শিক্ষক শামীমকে মোটরসাইকেলে তুলে নেন।

কিছুক্ষণ পর তারা বিন্নাটি মোড়ের কাছাকাছি গেলে একটি রড দিয়ে পিটিয়ে মিজানুর রহমানকে নামিয়ে মটরসাইকেল নিয়ে পালানোর চেষ্টা করে শামীম। এসময় মিজানুরের ডাক-চিৎকারে জনতা শামীমকে আটক করে গণধোলাই দেয়।

খবর পেয়ে সদর মডেল থানার পুলিশ গিয়ে শামীমকে আটক করে জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।

কিশোরগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর মোশারফ হোসেন জানান, শামীমের বিরুদ্ধে হত্যা, চাঁদাবাজি ও ভূমিদস্যুতাসহ বিভিন্ন অপরাধের মামলা এবং অভিযোগ রয়েছে।

মোটরসাইকেল ছিনতাই চেষ্টার ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।

অন্যদিকে শামীমের স্বজনদের দাবি, এ ঘটনা সাজানো ও পরিকল্পিত।






মন্তব্য চালু নেই