মেইন ম্যেনু

চুয়াডাঙ্গায় ট্রাক-নসিমন মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ১৩

চুয়াডাঙ্গা-দর্শনা সড়কের জয়রামপুরে ট্রাক-নসিমনের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত সংখ্যা বেড়ে ১৩ জনে দাঁড়িয়েছে। এ দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছেন ৯জন। হতাহতরা সকলেই নসিমনের যাত্রী।

রোববার (২৬ মার্চ) সকাল পৌনে ৭টার দিকে দামুড়হুদা উপজেলার জয়রামপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনের রাস্তায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানিয়েছে, দর্শনা থেকে চুয়াডাঙ্গামুখি নসিমনের সাথে বিপরীত দিক থেকে আসা ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ হলে ঘটনাস্থলেই নিহত হন ৮ জন। গুরুতর আহতবস্থায় ১৪ জনকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেয়ার পথে মারা যায় আরো ২ জন। অপর ১জনকে পুলিশ নিহত অবস্থায় থানায় নিলে পরে সাংবাদিকরা তা জানাতে পারে।

পরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আশঙ্কাজনক ২জনের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে মৃত্যু হয়।

তারা হলেন, রাজশাহীর পথে কুষ্টিয়ার পোড়াহে পৌঁছলে জাজ মিয়া এবং নাটরের কাছাকাছি গিয়ে শাহিন আলী মৃত্যুবরণ করেন।

নিহতদের মধ্যে অপর ২জনের পরিচয় পাওয়া গেছে, এরা হলেন দামুড়হুদা উপজেলার বড় বলদিয়া গ্রামের বিল্লাল ও রফিকুল ।

নসিমনের সকল যাত্রীই দিনমজুর ও একই এলাকার বাসিন্দা। তারা বাড়ী থেকে বের হয়ে আলমডাঙ্গা উপজেলার মুন্সিগঞ্জে কাজ করতে যাচ্ছিলেন বলে জানিয়েছেন জেলার সহকারি পুলিশ সুপার কলিমউল্লাহ। ঘাতক ট্রাকটি আটক করা সম্ভব হয়েছে বলে জানিয়েছেন এই পুলিশ কর্মকর্তা।

চুয়াডাঙ্গা ফায়ার ব্রিগেডের ষ্টেশন ইনচার্জ আব্দুস সালাম জানিয়েছেন ট্রাক-নসিমনের মুখোমুখি সংঘর্ষের খবর পেয়ে তারা দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধারকাজ শুরু করেন। নিহতদের অনেকেরই অঙ্গ প্রত্যঙ্গ ছিন্ন ভিন্ন হয়ে গেছে। এ ঘটনায় নিহতদের লাশ উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল মর্গে নেয়া হয়েছে। আহতদের একই হাসপাতালের জরুরি বিভাগে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। নিহতদের নাম পরিচয় এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

বেলা ১১টায় চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীনদের দেখতে গিয়ে আহত ও নিহতের প্রত্যেক পরিবারকে তাৎক্ষণিক ১০হাজার টাকা করে সহায়তার ঘোষণা দেন জেলা প্রশাসক সায়মা ইউনুস।






মন্তব্য চালু নেই