মেইন ম্যেনু

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্ররাজনীতি নিষিদ্ধ

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) ক্যাম্পাসে ফের নিষিদ্ধ করা হয়েছে ছাত্ররাজনীতি। রোববার গণমাধ্যমে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে তৃতীয়বারের মতো রাজনীতি নিষিদ্ধের ঘোষণা দেওয়া হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর সিরাজ উদ দৌল্লাহ। তিনি বলেন, ”বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে মিছিল, শোডাউন, সমাবেশের মতো কর্মকাণ্ড অনেক আগে থেকেই নিষিদ্ধ। মাঝখানে অঘোষিত ভাবে তা আবার শুরু হয়ে যায়। তবে পুলিশের প্রশাসনের সহযোগিতায় এবার আমরা এই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করবো।’

অনুসন্ধানে জানা যায়, ২০০৮ সালের ১০ নভেম্বর চবিতে প্রথম রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। এ সময় ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের পর ওইদিন সিন্ডিকেটের ৪৫৮ তম জরুরি সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়। ২০১২ সালের ৮ ফেব্রুয়ারিতে ছাত্রলীগ-শিবির সংঘর্ষে দুই ছাত্র নিহত হয়। এরপর আবারও সিন্ডিকেটের ৪৮০ তম জরুরি সভায় রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের ওপর নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়। গত ১৪ ডিসেম্বর ছাত্রলীগের দুই গ্রুপে সংঘর্ষে তাপস সরকার নিহত হওয়ার পর পুনরায় একই সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। শিক্ষার্থীরা জানায়, রাজনৈতিক নিষেধাজ্ঞার পরও স্বয়ং বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষই তা ভেঙেছে। ছাত্র শিবিরকে ২০১৩ সালের ২৬ আগস্ট সমাবেশ করার অনুমতি দিয়ে সিন্ডিকেট সিদ্ধান্ত অমান্য করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। গত বছরের ৮ ফেব্রুয়ারির সংঘর্ষ থেকে নভেম্বর পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠান করেছে শিবির। অপরদিকে সারা বছর ধরেই বিশ্ববিদ্যালয় মিছিল,সমাবেশ বিক্ষোভ করেছে ছাত্রলীগ।সাধারণ শিক্ষার্থীরা বারবার জিম্মি হয়েছে ছাত্র সংগঠনগুলোর কাছে।

তবে এবার পুলিশ প্রশাসনের সহযোগিতায় এই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করা হবে বলে দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন প্রক্টর।






মন্তব্য চালু নেই