মেইন ম্যেনু

‘ঘনিষ্ঠ ব্যবসায়ীদের লাভ পাইয়ে দিতে গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধি’

গ্যাসের দাম বৃদ্ধির সিদ্ধান্তকে ‘অযৌক্তিক ও নৈতিকতাবিহীন’ বলেছে বিএনপি। জনগণ এ সিদ্ধান্ত মানবে না দাবি করে সরকারকে এ সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসার আহ্বান জানানো হয়। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি করেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘জনগণকে শোষণ করার জন্য তথকথিত দাম বৃদ্ধির প্রস্তাব করা হয়েছে। সরকার ঘনিষ্ঠ কয়েকটি ব্যবসায়ী গোষ্ঠীকে অতিরিক্ত লাভ পাইয়ে দিতেই এ আয়োজন করা হয়েছে। অথচ বাস্তবে এলপিজির আমদানির ব্যয় অনেক হ্রাস পেয়েছে। বল্গাহীনভাবে রাজস্ব আদায় করতেই সরকার গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধি করেছে। পাশাপাশি গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির কারণে অল্পসময়ের মধ্যেই বিদ্যুতের দাম আবারও বাড়ানো হতে পারে। গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত অযৌক্তিক, নৈতিকতাবিহীন এবং এতে দেশের অর্থনীতি ভয়াবহ চাপে পড়বে।’

তিনি আরও বলেন, ‘গত আগস্টে বিইআরসিতে গণশুনানি হয়েছিল। ওই শুনানি আবারও গত বছরের ডিসেম্বরে হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সে শুনানিও অনুষ্ঠিত হয়নি। শুনানি এড়িয়ে গ্যাসের দাম বাড়ানো হয়েছে। সরকার তার আনুকূল্যতুষ্ট ব্যবসায়ীদের এলপিজি আমদানির সুযোগ করে দিতেই একটি লাইসেন্সরাজ প্রতিষ্ঠা করতে চাইছে। এর ফলে প্রতিযোগিতাহীন বাজারে কিছু মুখচেনাব্যক্তি অনার্জিত মুনাফা গুণবে। জনগণ শোষণের যাতাকলে নিষ্পেষিত হবে।

‘সরকার রাজস্ব ঘাটতি কমাতেই জ্ঞানশূন্য হয়ে পরেছে’ দাবি করে তিনি বলেন, গ্যাসের দাম বৃদ্ধির অযৌক্তিক সিদ্ধান্ত মানতে গিয়ে একদিকে গ্যাসখাত উন্নয়ন ব্যাহত হচ্ছে, অন্যদিকে জনগণের উপর বর্ধিত দামের বোঝার চাপ পড়ছে। আসলে সরকার রাজস্ব ঘাটতি পূরণ করতে গিয়ে দিগিবিদিক জ্ঞানশূন্য হয়ে সকলক্ষেত্রে করের বোঝা বৃদ্ধির অপচেষ্টায় মেতে উঠেছে।’

এ সময় তিনি অবিলম্বে গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।






মন্তব্য চালু নেই