মেইন ম্যেনু

গাজায় হত্যা বন্ধে রাষ্ট্রপ্রধানদের উদ্যোগ নিতে হবে

বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সহ-সভাপতি ও অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামান বলেছেন, ‘গাজায় ইসরায়েলের গণহত্যা বন্ধে বিশ্ববিবেককে জাগ্রত করতে হবে ও সকল দেশের রাষ্ট্রপ্রধানদের উদ্যোগ নিতে হবে।’

শনিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত এক সমাবেশ ও মানববন্ধনে এ কথা বলেন তিনি। গাজায় গণহত্যা বন্ধের দাবিতে এ সমাবেশ ও মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়।

গাজায় প্রতিনিধি দল পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেয়ায় ১৪ দলকে অভিনন্দন জানান এটিএম শামসুজ্জামান।

মার্কিন সাম্রাজ্যবাদের সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘মার্কিন সাম্রজ্যবাদ সবসময়ই নিরীহ মানুষের উপর নির্যাতন-নিপীড়ন চালিয়েছে। ১৯৭১ সালে বাংলাদেশে গণহত্যা চালানোয় পাকসেনাদের সহায়তা করে মার্কিনিরা।’

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, ‘তিনি সবসময় যুদ্ধাপরাধীদের পক্ষ নেন। আজ গাজায় গণহত্যা চালানো হচ্ছে অথচ বেগম জিয়া এ বিষয়ে কোনো কথা বলছেন না। গাজায় যেমন গণহত্যা চালানো হচ্ছে নির্বাচনের আগে বাংলাদেশেও পেট্রোল বোমা মেরে মানুষ পুড়িয়ে এভাবে গণহত্যা চালিয়েছে বিএনপি।’

‘খালেদা জিয়া কথায় কথায় গোপালগঞ্জ থাকবে না’ বলে হুমকি দেন- এমন অভিযোগ করে শামসুজ্জামান বলেন, ‘বগুড়া থেকে ‘ব’ বাদ দিলে থাকে গুড়া। এর অর্থ বিএনপি এখন গুড়া গুড়া।’

‘বিএনপির জন্মই ষড়যন্ত্রের মধ্যে দিয়ে’- এমন অভিযোগ করে তিনি আরও বলেন- ‘মা-ছেলে বিদেশে একত্রিত হয়ে আবার ষড়যন্ত্র করতে পারে। এজন্য সকলকে সজাগ থাকতে হবে।’

সমাবেশ ও মানববন্ধনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- আওয়ামী লীগের উপকমিটির সহ-সম্পাদক বলরাম পোদ্দার, কৃষক লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম, উপকমিটির সহসম্পাদক এম এ করিম, আয়োজক সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক অরুণ সরকার রানা।






মন্তব্য চালু নেই