মেইন ম্যেনু

খেজুর রস সংগ্রহে ব্যস্ত লালমনিরহাটের গাছিরা

আসাদুজ্জামান সাজু, লালমনিরহাট : লালমনিরহাটে শীতের আগমনী বার্তার সঙ্গে সঙ্গে খেজুরের রস আহরণে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন গাছিরা। ঘন কুয়াশা ও তীব্র শীতের মধ্যে খেজুর গাছের রস সংগ্রহে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছে তারা।

রস সংগ্রহরে জন্য খেজুর গাছকে ইতিমধ্যেই প্রস্তুত করে ফেলেছেন গাছিরা। এখন চলছে সুমিষ্ট রস সংগ্রহের পালা। গাছের মাথায় একই স্থানে অনেকখানি বাকল তুলে সেখানে হাড়ি বেঁধে নালার (বাঁশের তৈরি) সাহায্যে এ রস সংগ্রহ করা হয়। রাতে হাঁড়ি রেখে যায় গাছিরা। আর প্রতিদিন ভোরে ঘন কুয়াশার মধ্যে গাছ থেকে রসে ভরা হাঁড়ি নামানো হয়। এসব রসের হাঁড়ি মান ভেদে ৬০ থেকে ৮০ টাকায় বিক্রি করা হয়।

গাছিরা জানান, জেলায় আগের চেয়ে খেজুর গাছের সংখ্যা অনেক কমে গেছে। এখন এমন অনেক বাড়ি রয়েছে যেখানে কোনো খেজুর গাছ নাই। তাই অনেকেই আগাম রসের জন্য গাছিদের কাছে অগ্রিম টাকা দিয়ে রাখে রস সংগ্রহের জন্য। সে টাকায় কেউ কেউ রস সংগ্রহের সরঞ্জাম কিনে এখন গাছ কাটায় মগ্ন। আবার কেউ কেউ পুরনো দড়ি, দা, হাঁড়ি ও ঝুড়ি পরিচর্যায় ব্যস্ত।

হাতীবান্ধা উপজেলার ভেলাগুড়ি গ্রামের আঃ মতিন জানান, অন্য মৌসুমে তারা বিভিন্ন ফসলের চাষ করেন। কিন্তু শীত এলেই খেজুরের গাছ কাটায় ব্যস্ত হয়ে পড়েন। কারণ এ অঞ্চলে রসের পর্যাপ্ত চাহিদা থাকায় ভালো টাকা লাভ হয়। এ ছাড়া খেজুরের গুড়েরও বেশ কদর রয়েছে।

হাতীবান্ধা উপজেলার নাওদাবাস গ্রামের গাছি মোতালেব জানান, তার নিজের কোনো গাছ নেই। অন্যের গাছ কেটে রস সংগ্রহ করতে হয়। আর গাছের মালিককেও রসের একটা অংশ দিতে হয়। তারপরও প্রতি বছর তিনি রস ও গুড় বিক্রি করে লাভবান হন।






মন্তব্য চালু নেই