মেইন ম্যেনু

খালেদা ভাগ্য ফেরাতে পারবেন না

ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ করে বলেছেন, ‘যতোই বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা করুন, বিচারের নিয়ম-কানুন মেনেই এই মামলার (জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট) নিষ্পত্তি হবে। আপনার ভাগ্যে যা আছে তাই হবে। ভাগ্য ফেরাতে পারবেন না।’

বুধবার দুপুরে রাজধানীর সেগুনবাগিচার শিল্পকলা একাডেমিতে প্রয়াত আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুর রাজ্জাকের তৃতীয় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

কামরুল ইসলাম বলেন, ‘মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা না কি উদ্দেশ্যমূলকভাবে বিচার করছি। আমরা তো বিচারকও পরিবর্তন করেছি। তাহলে সমস্যা কোথায়? হাজার চেষ্টা করেও বিচার ঠেকাতে পারবেন না। ভাগ্যে যা আছে তাই হবে। যতোই চেষ্টা করুন লাভ নেই।’

তিনি বলেন, ‘যদিও আদালতের সময় সকাল ১০টায়, কিন্তু খালেদা ঠিক সময়ে আদালতে যান না। আদালতে হাজিরা দেয়ার নামে আজকেও এরা বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা করছে। এরা বিচার-আদালত মানে না। দেশে অস্থিতিশীল অবস্থার সৃষ্টি করতে চায়। আইনের প্রতি বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখাতে চায়।’

তিনি বলেন, ‘দেশে আবারও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা করা হচ্ছে। দেশ যখন স্থিতিশীল তখন ২০১৩ সালের মতো বীভৎস পরিস্থিতি সৃষ্টির চেষ্টা করা হচ্ছে। পত্র-পত্রিকায় যতোই লেখা হউক। দেশে জানুয়ারিতে কিছুই হবে না। পুরো মাস জুড়ে আমরা মাঠ দখল করে রাখবো।’

তিনি বলেন, ‘আমি রাজ্জাক ভাইয়ের নেতৃত্বাধীন বিএলফের অধীনে ভারতের দেরাদুনে ট্রেনিং নিয়েছি। অথচ মির্জা ফখরুল ইসলাম বিএলএফ নিয়ে বাজে কথা বলেছেন। ওই সময় বিএনপির জন্মই হয়নি। মিথ্যাচার ও মুক্তিযুদ্ধকে বিতর্কিত করার চেষ্টা বিএনপি করে থাকে।’

তিনি আরো বলেন, ‘অনেকের বিচার হয়েছে। শীর্ষ যুদ্ধাপরাধীদের বিচার আমরা শেষ পর্যায়ে নিয়ে এসেছি। এই সরকারের শেষ সময়ের মধ্যেই রায় কার্যকর করা হবে।’

বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সহ-সভাপতি মোবারক আলী শিকদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন জোটের সহ-সভাপতি অভিনেতা এটিএম শামছুজ্জামান,  ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক অরুণ সরকার রানা প্রমুখ।






মন্তব্য চালু নেই