মেইন ম্যেনু

খালেদার আন্দোলনই তাসের ঘরের মতো ভেসে যাবে: তোফায়েল

‘আন্দোলনের স্রোতে সরকার তাসের ঘরের মত ভেসে যাবে’ বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ করে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য ও বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহম্মেদ বলেছেন, “আমি বলব খালেদার আন্দোলন তাসের ঘরের মতো ভেসে যাবে।”

মঙ্গলবার সন্ধায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক মিলনায়তন (টিএসটি)তে প্রয়াত আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুর রাজ্জাকের তৃতীয় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত স্মরণসভায় তিনি এসব কথা বলেন।

তোফায়েল বলেন, “দেশ নিয়ে যারা ষড়যন্ত্র করে তাদের ষড়যন্ত্র আর কোনো দিন সফল হবে না। সবাই আজ দেশ রক্ষায় ঐক্যবদ্ধ। সব দিক থেকে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে।”

বঙ্গবন্ধুকে যারা তাচ্ছিল্য করে ওদের প্রতি ঘৃণা প্রদর্শন করা ছাড়া আর কি করার আছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, “যারা স্বাধীনতার ইতিহাস ম্লান করতে চায় তাদের একটি উদ্দেশ্য আছে। শুধু ডক্টরেট ডিগ্রি অজর্জন বা সার্টিফিকেট অর্জন করলেই জ্ঞানী হওয়া যায় না। অনেক জ্ঞানপাপী আছে যারা সব কিছু জানে-বোঝে কিন্তু বলে না। কারণ তরা বিএনপি করে।”

তিনি বলেন, “আজ পাকিস্তান অকার্যকর রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে। যে রক্ত বাংলাদেশে তারা ঝরিয়েছে তাতে কোনোদিন তাদের দেশে শান্তি ফিরবে বলে আমি মনে করি না। কতগুলো নিষ্পাপ শিশুর জীবন চলে গেছে সেদেশে জঙ্গী হামলায়।”

স্বাধীনতার ঘোষণা সম্পর্কে তোফায়েল বলেন, “আইএসআই রিপোর্ট দিয়েছিল স্বাধীনতার ঘোষনা দিতে পারে তাই পাকিস্তান সেদিন বোমারু বিমান ও সকল ফোর্স প্রস্তুত রেখেছিল। সেদিন ঘোষণা করলেই কতগুলো মানুষ মারতো বুঝতেই পারছেন। সেদিন বঙ্গবন্ধু বিচক্ষণতার পরিচয় দিয়ে ঘোষনা না দিয়ে ৭ই মার্চ স্বাধীনতার ঘোষনা দিয়েছে।”

তিনি বলেন, “কোথাকার কোন মেজরকে তারা (বিএনপি) স্বাধীনতার ঘোষক দাবি করে বসে আছে। যুদ্ধের সময় জিয়াকে কেউ চিনতেনই না। সে ছিল চট্টগ্রামে। যদি জিয়া ঢাকায় থাকতো তবে বাংলাদেশের পক্ষে কাজ করতো না।”

‘মুজিব বাহিনী বুদ্ধিজীবীদের হত্যা করেছে’ ফখরুল ইসলামের এমন বক্তব্যের জবাবে তিনি বলেন, “সবাই জানে বুদ্ধিজীবীদের কারা হত্যা করেছে। জানে না শুধু দালালরা। আজ ফখরুল এই কথা বলে প্রমাণ করলেন তিনি দালাল ছিল। আলবদর বাহিনীর প্রধান নিজামী কি বলবে সে হত্যা করেছে।মুজাহিদ সাঈদী কাদের মোল্লা কি বলবে তারা হত্যা করেছে।”

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. আব্দুল মান্নানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত, জাসদ সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, ওয়ার্কার্স পার্টির রাশেদ খান মেনন প্রমুখ।






মন্তব্য চালু নেই