মেইন ম্যেনু

কোমায় থেকে অন্তঃসত্ত্বার সন্তান প্রসব, জেগে উঠলেন চার মাস পর!

দুর্ঘটনাক্রমে চলন্ত ট্রেনের আঘাত মাথায় লাগে অন্তঃসত্ত্বা মারিয়া কুদরিনার। ভাগ্যের সহায়তায় বেঁচে যান। সঙ্গে সঙ্গে জ্ঞান হারান তিনি এবং চলে যান কোমায়। এ অবস্থাতেই এক ফুটফুটে কন্যা শিশুর জন্ম হয়। এর চেয়ে অদ্ভুত ঘটনা হলো, চিকিৎসকদের অবাক করে দিয়ে চার মাস পর কোমা থেকে জেগে উঠেছেন তিনি।

মারিয়ার বয়স ৩১ বছর। গত ডিসেম্বরের ১৮ তারিখ মস্কোতে এক রেল স্টেশনে দাঁড়িয়ে ছিলেন ট্রেনের অপেক্ষায়। প্লাটফর্মে হাঁটতে হাঁটতে হঠাৎ হোঁচট খান এবং রেল লাইনের ওপর পড়ে যায়। ওই সময়ই ট্রেন এসে পড়ে। কোনমতে উঠে নিরাপদে সরে যেতে যেতেই ট্রেনের ধাক্কা লাগে তার মাথায়। জ্ঞান হারান সঙ্গে সঙ্গে। একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। কোমায় চলে যান মারিয়া। ছয় সপ্তাহ পর হাসপাতালে স্বাস্থ্যবান শিশুর জন্ম হয়, তখনো তিনি কোমায়।

হাতপাতালের চিকিৎসক ড. দিমিত্রি কোনেভ বলেন, আঘাতের কারণে অন্ত্রপচারের মাধ্যমে তার শিশুর জন্ম দেওয়া হয়। অবাক করা বিষয় হলো, স্বাভাবিক সময়ের ৭ মাস আগে জন্ম হয় শিশুটির। কিন্তু একটি স্বাস্থ্যবান পূর্নাঙ্গ শিশুর জন্ম হয়েছে।

এর পর থেকে হাসপাতালের সবাই মারিয়ার জন্যে প্রার্থনা করতে থাকেন, প্রার্থনা করতে থাকেন মারিয়ার স্বামী ভ্লাদিমির। টানা চারমাস এ অবস্থাতেই পড়ে থাকেন মারিয়া। অবশেষে ঈশ্বর সাড়া দিলেন। হঠাৎ করেই কোমা থেকে জেগে উঠলেন মারিয়া। আনন্দ ছড়িয়ে পড়ে গোটা হাসপাতালে।

ভ্লাদিমির বলেন, একদিন মারিয়া জেগে উঠলো এবং হাত নাড়াতে শুরু করলো। সে কথা বলার জন্যে মুখ খুললো। তবে সম্ভবত স্মৃতি হারিয়েছে আমার স্ত্রী। সে কাউকে চিনতে পারছে না। আমরা আমাদের বিয়ের ছবিসহ নানাভাবে ওর স্মৃতি ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করছি। আমাদের সদ্যজাত মেয়েরও ছবি তুলে ওকে দেখাচ্ছি।

এদিকে, চিকিৎসকরা মারিয়াকে খুব দ্রুত ইনটেনসিভ কেয়ারে নিয়ে গেছেন। স্মৃতি ফিরিয়ে আনতে যাবতীয় চিকিৎসা দেওয়া হবে তাকে।
সূত্র : ফক্স নিউজ






মন্তব্য চালু নেই