মেইন ম্যেনু

কোত্থেকে দুঃসাহস পায় ইসরায়েল : কাজী জাফর

ফিলিস্তিনের গাজায় বর্বর আগ্রাসনের দুঃসাহস ইসরায়েল কোত্থেকে পায় এমন প্রশ্ন করেছেন জাতীয় পার্টির একাংশের চেয়ারম্যান কাজী জাফর আহমদ। এই বর্বর ধ্বংস ও হত্যাযজ্ঞ অবিলম্বে বন্ধের সার্বিক উদ্যোগ গ্রহণের জন্য বিশ্বের বৃহৎ শক্তিগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

রোববার দলটির চেয়ারম্যান কাজী জাফর আহমদ ও মহাসচিব মোস্তফা জামাল হায়দার এক যৌথ বিবৃতিতে বলেন, ‘ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডে যে অন্যায় অত্যাচার নির্যাতন চালিয়েছে ইসরায়েল, বিশেষ করে সাম্প্রতিক যে হত্যাযজ্ঞ তার শক্তি ও সাহস কারা যোগাচ্ছে? কারা যোগায় এর মদদ? গাজাসহ খোদ ইসরায়েলি ভুখণ্ডেও এ বর্বর হত্যাযজ্ঞের বিরুদ্ধে সোচ্চার মানুষ।’

তারা বলেন, ‘স্বাধীন ফিলিস্তিন ভুখণ্ডে গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলি বর্বর আগ্রাসন ও হত্যাযজ্ঞ অব্যাহত রয়েছে। একটানা ১৩ দিন ধরে মানবতার চরম দুশমন ইসরায়েলি রাষ্ট্রটির বেপরোয়া ও নির্বিকার ক্ষেপনাস্ত্র, ট্যাংক ও বিমান হামলায় শত শত নারী-পুরুষ ও শিশু নিহত হয়েছে।’

বিবৃতিতে তারা বলেন, ‘মাটির সঙ্গে মিশিয়ে দেয়া হচ্ছে গাজার অস্তিত্ব-ঘরবাড়ি, দালানকোটা, স্থাপনা সব কিছু। রোববার একদিনেই নিহত হয়েছে ৯৭ জন ফিলিস্তিনি। এ পর্যন্ত নিহতের সংখ্যা প্রয় সাড়ে চারশ। ইসরায়েলি গোলায় ক্ষতবিক্ষত গাজাবাসী যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছে। অথচ অবরুদ্ধ নিরস্ত্র গাজাবাসীকে রক্ষার কোনো পদক্ষেপ নেই। একটি স্বাধীন ভূখণ্ডে আরেকটি রাষ্ট্রের এমন বর্বর ও নির্বিকার হত্যাযজ্ঞ বিশেষ করে নারী ও শিশু হত্যা নজিরবিহীন। অথচ বিশ্ব সম্প্রদায় নিস্ক্রিয়, আগ্রাসন কমানোর কোন উদ্যোগ নেই।’

তারা বলেন, ‘ইসরায়েলি এই উম্মাত্ততায় বিশ্বের শান্তিপ্রিয় মানুষের সঙ্গে বাংলাদেশের মানুষও ক্ষুব্ধ, হতাশ ও স্তম্ভিত। এই হত্যাযজ্ঞের নিন্দা জানানোর ভাষা আমাদের নেই। তবে এই ইহুদী রাষ্ট্রটি জাতিসংঘসহ পৃথিবীর সকল শান্তিপ্রিয় রাষ্ট্র ও মানুষের প্রতিবাদ উপেক্ষা করে বর্বরতা অব্যাহতভাবে চালাচ্ছে। বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখাচ্ছে গোটা বিশ্ববাসীকে।’






মন্তব্য চালু নেই