মেইন ম্যেনু

কে এই মাহারশালা আলী?

প্রথম ‘মুসলিম’ অভিনেতা হিসেবে বিশ্ব চলচ্চিত্রের সবচেয়ে দামী পুরস্কার অস্কার জয়ী মাহারশালা আলী মূলত ‘আহমদিয়া’ সম্প্রদায়ের সদস্য।

মার্কিন ড্রামা ফিল্ম ‘মুনলাইট’ ছবির জোয়ান চরিত্রে অভিনয়ের জন্য এবারের সেরা পার্শ্ব অভিনেতার অস্কার জয়ী হয়েছেন মাহারশালা আলী।

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যের ওকল্যান্ডের একটি খ্রিস্টান পরিবারে ১৯৭৪ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি জন্ম নেন তিনি।

প্রথমে তার নাম রাখা হয় এরিক গিলমোর। পরে খ্রিস্টানদের ধর্মগ্রন্থ বাইবেল অনুযায়ী তার নাম রাখা হয় মাহের শালাল হাশ বাজ।

তার মা উইলিসিয়া একজন খ্রিস্টান মিনিস্টার (চার্চ অনুমোদিত ধর্মীয় শিক্ষক)। তিনি ছেলেকে খ্রিস্টান হিসেবে গড়ে তুলেছিলেন।

২০০০ সালে আহমদিয়া অভিনেত্রী, কম্পোজার এবং শিল্পী আমাতুস সামি করিম এবং তার মায়ের সাথে আহমদিয়াদের একটি উপসনালয় পরির্দশন করেন এরিক।

এরপরই খ্রিস্টান ধর্ম ছেড়ে আহমদিয়া হিসেবে ধর্মান্তরিত হন এরিক। এ সময় খ্রিস্টান নাম বাতিল করে ‘মাহারশালা করিম-আলি’ নাম রাখেন তিনি।

সামি করিমের সঙ্গে নিউইয়র্ক বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় বন্ধুত্ব হয় মাহারশালার। পরে ২০১৩ সালে বিয়ে করেন তারা। গত ২২ ফেব্রুয়ারি এ দম্পতি একটি কন্যা সন্তানের জন্ম দেন। তার নাম বারি নাজমা।

মাহারশালা আলী ক্যালিফোর্নিয়ার সেইন্ট মেরি কলেজে ‘গণযোগাযোগ’ বিষয়ে গ্রাজুয়েশন করেন। সেখানেই ‘স্পুংক’ নামে একটি মঞ্চনাটকের মধ্য দিয়ে তার অভিনয় জীবন শুরু হয়। পরে তিনি ক্যালিফোর্নিয়া শেকসপিয়র থিয়েটারে যোগ দেন।

২০০০ সালে নিউইয়র্ক ইউনিভার্সিটিতে অভিনয়ের ওপর মাস্টার্স ডিগ্রী করেন তিনি।

পরে নেটফ্লিক্সের ‘হাউজ অব কার্ডসে’ রেমি ড্যান্টন এবং ‘লুক কেইজে’ কর্নেল স্টোকস, দ্য হাংগার গেমস: মকিং জে পার্ট-১ ও ২ এ কর্নেল বোগাস এবং ‘দ্য কিউরিয়াস কেস অব বেনজামিন বাটনে’ টিজি চরিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে পরিচিতি পান তিনি।

২০১৬ সালে মুনলাইটে অভিনয়ের মাধ্যমে খ্যাতিমান হয়ে ওঠেন মারশালা আলী। এজন্য গত ডিসেম্বরে তিনি সেরা পার্শ্ব অভিনেতা হিসেবে ‘ক্রিটিক চয়েজ অ্যাওয়ার্ড’ জয় করেন। অবশেষে ৮৯তম অস্কারও জয় করেন তিনি।






মন্তব্য চালু নেই