মেইন ম্যেনু

কীসের প্রতিশোধ !

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে লক্ষ্য করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘কীসের প্রতিশোধ, কার উপর প্রতিশোধ? কোথায় নেবে? কার ওপরে নেবে? এগুলো ভেবে দেখতে হবে।’

রোববার বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে ইন্দোনেশিয়া সফর নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

সিটি নির্বাচনের দুদিন আগে রোববার বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সংবাদ সম্মেলনের দুই ঘণ্টার ব্যবধানে গণভবনে সংবাদ সম্মেলনে এই মন্তব্য করেন শেখ হাসিনা।

বিএনপি-জামায়াত জোটের হরতাল-অবরোধে নাশকতার ঘটনাগুলো তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, ‘খালেদা জিয়া আন্দোলনের নামে যেভাবে মানুষ পোড়াল, সে রকম জঘন্য কাজ বিশ্বে কোথাও কি কেউ দেখেছে? উনি যে মানুষকে পোড়ালেন তিনি আবার মানুষের কাছে ভোট চান কীভাবে? কোন মুখে ভোট চান? লজ্জাও তো লাগে।’

‘খালেদা জিয়া নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করে প্রচার চালালেও তা কোনো গণমাধ্যমে আসেনি। এমনকি তার গাড়িবহরের নিচে একজনের চাপা পড়লেও কোনো গণমাধ্যমে সেই ছবি আসেনি,’ বিএনপি চেয়ারপারসনের নিরাপত্তাকর্মীদের গাড়ির নিচে চাপা পড়া এক তরুণের ছবি সংবাদ সম্মেলনে দেখিয়ে এই মন্তব্য করেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এই ছবি তো আপনারা দেখাননি।খালেদা জিয়া জনতার রুদ্ররোষেই পড়েছিলেন।’

আরেক প্রশ্নের জবাবে শেখ হাসিনা বলেন, ‘জাতীয় নির্বাচনের আগে আমি ফোন করেছিলাম, উনি ছয় ঘণ্টা পর ফোন ধরলেন। উনার যে কথা, আমার এই জীবনে এই রকম মুখ ঝামটা, ঝাড়ি আর খাইনি।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘উনার ছেলে মারা গেল, আমি গেলাম সহানুভূতি জানাতে। আমি গেলাম, আমি নামতে পারলাম না, উনার গেটে তালা। আমাকে ঢুকতে দিলেন না, ভেতরে অনেক লোকজন ছিল, একটুকু ভদ্রতাও তো দেখায়নি। সবচেয়ে বড় কথা, খালেদা জিয়ার কথাকে বিশ্বাস করা যায় না।’

বিএনপি নেত্রীর বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় আওয়ামী লীগ সভানেত্রী বলেন, ‘তিনি মিথ্যার ফুলঝুরি দিয়ে গেছেন। দেশের ভেতরে তো মিথ্যাচার করেই যাচ্ছেন, বিদেশিদেরও কাছেও ছাড় দেননি। মিথ্যা কথা উনি চমৎকারভাবেই বলতে পারেন।’

ভোটারদের অর্থ নেওয়ার পরামর্শ দিয়ে খালেদার বক্তব্যের সমালোচনা করে তিনি আরো বলেন, ‘উনি অর্থ নেওয়াটা ভালো বোঝেন। ক্ষমতায় থাকতে অর্থ নিয়ে গেছেন। অর্থ নেওয়া, বেঈমানি করাটা উনার স্বভাব।’

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া সংবাদ সম্মেলনে আসন্ন সিটি নির্বাচনে ‘নীরব প্রতিশোধ’ নেওয়ার হুমকি দেওয়ায় তার প্রত্যুত্তরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রশ্ন তুলেছেন, ‘কীসের প্রতিশোধ? কে কার প্রতিশোধ নেবে?’

খালেদা জিয়াকে নির্দেশ করে শেখ ‍হাসিনা বলেন, ‘তার নির্দেশে কত মায়ের কোল খালি হয়েছে। এখন প্রতিশোধ যদি জনগণ নেয়, তা কার ওপর নেবে, সেটা তার ভেবে দেখা উচিত।’

প্রধানমন্ত্রী সাংবাদিকদের উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘সহিংসতার সেসব ঘটনা আপনারাও ভুলে যেতে পারেন। কিন্তু জনগণ ভুলবে না।’

খালেদা জিয়ার কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা আরো বলেন, ‘তিনি যখনই ক্ষমতায় এসেছেন জনগণের জীবনকে দুর্বিসহ করে তুলেছেন। মানুষ খুন করে এখন মানুষকেই যখন প্রতিশোধ নিতে বলেন, মানুষকে পুড়িয়ে মানুষকেই প্রতিশোধ নিতে বলেন, এর চেয়ে হাস্যকর আর কিছুই নেই।’






মন্তব্য চালু নেই