মেইন ম্যেনু

কিছু ফসিল আমলা ও দক্ষ মন্ত্রী দিয়ে দীর্ঘসময় রাষ্ট্রপরিচালনা সম্ভব না

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত বলেছেন, ‘কিছু ফসিল আমলা আর দক্ষ মন্ত্রী দিয়ে সাময়িক রাষ্ট্র পরিচালনা করা গেলেও দীর্ঘমেয়াদীভাবে রাষ্ট্রপরিচালনা সম্ভব না।’
শুক্রবার রাজধানীর কাকরাইলে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধু একাডেমি আয়োজিত চলমান রাজনীতি বিষয়ক এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
সুরঞ্জিত বলেন, ‘রাষ্ট্র পরিচালনার মূল চালিকা শক্তি হল দল। এখনও সময় ফুরিয়ে যায়নি। এখন প্রয়োজন দলকে গোছানো। এ দায়িত্ব প্রধানমন্ত্রীর বিশ্বস্ত লোক দিয়ে করা উচিৎ।’
তিনি বলেন, ‘সরকার যত বেশি শক্তিশালী হোক তার মূল চালিকা সংগঠন। আমাদের তরুণ নেতা সজীব ওয়াজেদ জয় সংগঠনের দিকে মনোযোগ দিচ্ছেন। তার এ উদ্যোগ সংগঠনকে জনগণ ও সাধারণের মধ্যে সেতুবন্ধন তৈরি করবে। তরুণ প্রজন্ম তার এ উদ্যোগকে সহযোগিতা করবে।’
বিএনপিকে ধৈর্য ধরার পরামর্শ দিয়ে সুরঞ্জিত বলেন, ‘আপনাদের দুঃখ আমরা বুঝি। আপনারা রাজনীতিতে ভুল করেছেন। তার খেসারত দিতে হবে। প্রধানমন্ত্রী বৃহস্পতিবার সংসদে বলেছেন দেশে যা কিছু পরিবর্তন হবে সবই সাংবিধানিক ও নির্বাচনের মাধ্যমেই হবে। সময় আপনাদেরও আসবে, অপেক্ষা করুন।’
সুইস ব্যাংকের টাকার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘ইউএনডিপির রিপোর্টে দেখা গেছে বাংলাদেশ থেকে হাজার কোটি টাকা পাচার হয়ে যাচ্ছে। এ ছাড়া বিদেশ থেকে অনেক টাকা এসে বাংলাদেশের সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদের মতো সংগঠনগুলোকে সহযোগিতা করছে। এগুলোর ব্যাপারে সরকারকে সজাগ ও সতর্ক থাকতে হবে।’
তিনি উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, ‘দক্ষিণ এশিয়ার অর্থপাচারকারী দেশ হিসেবে আমরা দ্বিতীয়। এটা খুবই উদ্বেগের বিষয়। হাজার হাজার আওয়ামী লীগ কর্মী না খেয়ে আছে। আর কিছু সুবিধাবাদীরা এ পাচার কাজের সঙ্গে জাড়িয়ে দেশের সুনাম নষ্ট করছে।’
তিনি বলেন, ‘কারা কারা টাকা পাচার করেছে সেগুলো ফেরত আনা সম্ভব হোক না হোক তাদের নাম-ঠিকানা প্রকাশ করার ব্যবস্থা করা হোক। এরা আর যাই হোক দেশপ্রেমিক না, অর্থপাচারকারী।’
সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির মিজির সভাপতিত্বে আরও উপস্থিত ছিলেন- আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সতিশ চন্দ্র রায়, আওয়ামী লীগ নেতা মোজাফ্ফর হোসেন পল্টু, মহানগর সহ-সভাপতি ফয়েজ উদ্দিন মিয়া, কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সামুছুল হক রেজা প্রমুখ।






মন্তব্য চালু নেই