মেইন ম্যেনু

কানাডায় রাজনৈতিক আশ্রয় চেয়েছেন লতিফ সিদ্দিকী!

কানাডায় রাজনৈতিক আশ্রয় প্রার্থনা করেছেন সদ্যবিদায়ী ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য-প্রযুক্তিমন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকী। কানাডার কর্তৃপক্ষ সে আবেদন বিবেচনার জন্য প্রাথমিকভাবে গ্রহণ করেছে বলেও একটি সূত্র জানিয়েছে।

এদিকে নিউইয়র্কে পবিত্র হজ ও ইসলামের নবী সম্পর্কে বিতর্কিত মন্তব্য করে মেক্সিকো গিয়েছিলেন তিনি। যতদূর জানা যাচ্ছে তিনি আবার নিউইয়র্কে ফিরে গা ঢাকা দিয়েছেন। গত বৃহস্পতিবার মেক্সিকো থেকে নিউ ইয়র্কে ফেরার পর থেকে কেউ তাঁর হদিস পাচ্ছে না।

নিউ ইয়র্কে আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীর ঘনিষ্ঠ একটি সূত্র জানিয়েছে, আগামী দু-এক দিনের মধ্যে তিনি কানাডায় রাজনৈতিক আশ্রয়ের জন্য আবেদন করবেন। তবে ঢাকার একটি সূত্র জানিয়েছে, এরই মধ্যে তিনি কানাডায় রাজনৈতিক আশ্রয় প্রার্থনার জন্য দেশটির সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন পাঠিয়ে দিয়েছেন এবং কর্তৃপক্ষ আবেদনটি গ্রহণও করেছে।

এদিকে হজ ও তাবলীগ জামাত সম্পর্কে কটূক্তি করার ঘটনায় বাংলাদেশে এবং যুক্তরাষ্ট্রে প্রবাসী বাংলাদেশিদের মধ্যে তাঁর বিরুদ্ধে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ায় নিউ ইয়র্কে লোকচক্ষুর আড়ালে চলে গেছেন টেলিযোগাযোগমন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকী। গত বৃহস্পতিবার তিনি নিউ ইয়র্কে ফেরার পর স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মী, প্রবাসী টাঙ্গাইলবাসী এমনকি জাতিসংঘে বাংলাদেশি স্থায়ী মিশন ও নিউ ইয়র্কে কনস্যুলেটের কর্মকর্তারাও তাঁর কোনো খোঁজ দিতে পারছেন না।

গত ২৮ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্কে টাঙ্গাইল সমিতির অনুষ্ঠানে হজ ও তাবলীগ জামাত নিয়ে কটূক্তি করার পর দেশে বিদেশে এই নিয়ে তুমুল বিতর্ক শুরু হয়। তার ওই বক্তব্যের ফলে ইতোমধ্যে বাংলাদেশের মন্ত্রিসভা থেকে তাঁকে অপসারণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

সূত্র:কালের কন্ঠ






মন্তব্য চালু নেই