মেইন ম্যেনু

কাউন্সিলর পদে আ’ লীগ ১৯, বিএনপি ১৫ অন্যান্য ২

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে মেয়র পদে হারলেও ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদে ১২টিতে জয়ী হয়েছে বিএনপি-সমর্থিত প্রার্থীরা। ২৭টি সাধারণ ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদে আওয়ামী লীগ-সমর্থিত প্রার্থীরা ১৩টি ওয়ার্ডে জয় পেয়েছেন। বিজয়ী বাকি দুই জনের মধ্যে জাতীয় পার্টি (জাপা) ১টি ও বাসদ পেয়েছে ১টি। ২৭টি সাধারণ ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদে এবার প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ছিলেন ১৫৬ জন।

এছাড়া সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলরের নয়টি পদে ৩৮ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন। তাদের মধ‌্যে আওয়ামী লীগ সমর্থিত ছয়জন এবং বিএনপি সমর্থিত তিন প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন।

নারায়ণগঞ্জ ক্লাবের দ্বিতীয় তলার নির্বাচন নিয়ন্ত্রণ কক্ষ থেকে বৃস্পতিবার রাতে রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. নুরুজ্জমান তালুকদার বেসরকারিভাবে বিজয়ী কাউন্সিলরদের নাম ঘোষণা করেন।

বিজয়ী ওয়ার্ড কাউন্সিলদের তালিকা-

১ নম্বর ওয়ার্ড : মো. ওমর ফারুক, আওয়ামী লীগ।

২ নম্বর ওয়ার্ড : ইকবাল হোসেন, বিএনপি।

৩ নম্বর ওয়ার্ড : শাহ্জালাল বাদল; আওয়ামী লীগ।

৪ নম্বর ওয়ার্ড : আরিফুল হক হাসান, আওয়ামী লীগ।

৫ নম্বর ওয়ার্ড : গোলাম মুহাম্মদ সাদরিল; বিএনপি।

৬ নম্বর ওয়ার্ড : মতিউর রহমান মতি; আওয়ামী লীগ। তিনি সিদ্ধিরগঞ্জ থানা যুবলীগের আহ্বায়ক।

৭ নম্বর ওয়ার্ড : আলী হাসান আলা; আওয়ামী লীগ। সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের এই যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দ্বিতীয়বারের মতো কাউন্সিলর হলেন।

৮ নম্বর ওয়ার্ড : রুহুল আমিন। স্থানীয় এই আওয়ামী লীগ নেতাও দ্বিতীয়বার কাউন্সিলর হলেন।

৯ নম্বর ওয়ার্ড : ইস্রাফিল প্রধান; বিএনপি। তিনি দ্বিতীয়বারের মতো নির্বাচিত হলেন।

১০ নম্বর ওয়ার্ড : ইফতেখার আলম খোকন, আওয়ামী লীগ।

১১ নম্বর ওয়ার্ড : জমশের আলী ঝন্টু; বিএনপির স্থানীয় এই নেতা গত ২৪ বছর ধরে কাউন্সিলর ও ওয়ার্ড মেম্বার।

১২ নম্বর ওয়ার্ড : শওকত হাশেম শকু। এই বিএনপি নেতা তৃতীয়বার কাউন্সিলর হলেন।

১৩ নম্বর ওয়ার্ড : মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ; তিনি মহানগর যুবদলের আহ্বায়ক। তিনিও তৃতীয়বারের মতো নির্বাচিত হলেন।

১৪ নম্বর ওয়ার্ড : শফিউদ্দিন প্রধান; আওয়ামী লীগ।

১৫ নম্বর ওয়ার্ড : অসিৎ বরণ বিশ্বাস, বাসদ। নির্বাচিত হলেন দ্বিতীয়বার।

১৬ নম্বর ওয়ার্ড : নাজমুল আলম সজল, নগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি।

১৭ নম্বর ওয়ার্ড : মো. আব্দুল করিম বাবু ওরফে ডিশ বাবু, আওয়ামী লীগ।

১৮ নম্বর ওয়ার্ড : কবির হোসাইন, আওয়ামী লীগ।

১৯ নম্বর ওয়ার্ড : ফয়সাল আহাম্মদ সাগর, আওয়ামী লীগ। নির্বাচিত হয়েছেন দ্বিতীয়বার।

২০ নম্বর ওয়ার্ড : গোলাম নবী মুরাদ, বিএনপি

২১ নম্বর ওয়ার্ড : হান্নান সরকার, বিএনপি। দ্বিতীয়বার কাউন্সিলর নির্বাচিত।

২২ নম্বর ওয়ার্ড : সুলতান আহম্মেদ ভুঁইয়া, বিএনপি। তিনিও দ্বিতীয়বার নির্বাচিত হয়েছেন।

২৩ নম্বর ওয়ার্ড : সাইফুদ্দিন আহম্মদ দুলাল। আওয়ামী লীগের এই স্থানীয় নেতা দ্বিতীয়বার জয়ী হলেন।

২৪ নম্বর ওয়ার্ড : আফজাল হোসেন।জাতীয় পার্টির এই নেতাও নির্বাচিত হলেন দ্বিতীয়বার।

২৫ নম্বর ওয়ার্ড : এনায়েত হোসেন, বিএনপি। দ্বিতীয়বার কাউন্সিলর নির্বাচিত।

২৬ নম্বর ওয়ার্ড : মো. সামছুজ্জোহা, বিএনপি

২৭ নম্বর ওয়ার্ড : কামরুজ্জামান বাবুল, বিএনপি।

সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর

১, ২, ৩ নম্বর ওয়ার্ড : মাকসুদা মোজাফফর, আওয়ামী লীগ। দ্বিতীয়বার এ পদে নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। ৪, ৫, ৬ নম্বর ওয়ার্ড- মনোয়ারা বেগম, আওয়ামী লীগ; ৭, ৮, ৯ নম্বর ওয়ার্ড- আয়েশা আক্তার দিনা, বিএনপি; ১০, ১১, ১২ নম্বর ওয়ার্ড- মিনায়ারা বেগম (আওয়ামী লীগ সমর্থিত এই প্রার্থী কাউন্সিলর হলেন তৃতীয়বারের মতো), ১৩, ১৪, ১৫ নম্বর ওয়ার্ড- শারমিন হাবিব বিনি, আওয়ামী লীগ (দ্বিতীয়বার নির্বাচিত); ১৬, ১৭, ১৮ নম্বর ওয়ার্ড- আফসানা আফরোজ, বিএনপি; ১৯, ২০, ২১ নম্বর ওয়ার্ড- শিউলী নওশাদ, আওয়ামী লীগ; ২২, ২৩, ২৪ নম্বর ওয়ার্ড- শাওন অঙ্কন, আওয়ামী লীগ; ২৫, ২৬, ২৭ নম্বর ওয়ার্ড- হোসনে আরা, বিএনপি।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই