মেইন ম্যেনু

এ কেমন প্রেমিক!

পরকীয়া প্রেমের জের ধরে আক্তার জাহান লাকীকে (৩৫) পিটিয়ে হাত-পা ভেঙে দিয়েছেন ব্যাসায়ী খোকন হালাদার।

আহত লাকীকে প্রথমে পটুয়াখালী পরে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে সোমবার হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ লাকিকে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে পাঠান।

এলাকাবাসী জানান, রড সিমেন্ট ব্যবসায়ী খোকন হাওলাদারের বাড়ি ভাড়া নিয়ে পার্লার ব্যবসা শুরু করেন লাকী। সেই সুবাদে খোকনের সঙ্গে লাকীর সখ্যতা বাড়ে এবং গোপনে তারা বিয়েও করেন।

এর ধারাবাহিতকায় রোববার রাত সাড়ে ৯টার দিকে শহরের ২নং বাধঘাট এলাকায় খোকনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সামনে বাক বিতণ্ডার এক পর্যায়ে হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েন তারা। এ সময় পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী খোকন ও তার সহযোগি রেজাউলসহ ৭-৮ জনের একটি দল লাকীকে মারধর করে। এ সময় লাকী চিৎকার করলে মুখ চেপে ধরে লোহার রড ও কাঠের টুকরো দিয়ে পায়ের অংশ গুড়িয়ে দেয় খোকন। পরে অচেতন অবস্থায় লাকীকে ফেলে চলে যায় তারা।

ওই রাতেই পরিবারের সদস্যরা লাকীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। এ সময় লাকীর অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে পটুয়াখালী হাসপাতালের ডাক্তার তাকে বরিশাল অথবা ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন।

সোমবার বরিশাল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ লাকীর অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে তাকে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে পাঠান বলে জানান, লাকীর স্বামী কবির মুন্সি।

এ ব্যাপারে পটুয়াখালী সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জিয়াউল হক জানান, ঘটনা শোনার পর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আজিমুল হকসহ পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে যান। বর্তমানে আসামিরা পলাতক রয়েছে। তবে তাদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

রিপোর্র্ট লেখা পর্যন্ত এ ঘটনায় এখন আহতের পরিবার থানায় কোনো অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে পুলিশ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে বলেও জানান তিনি।






মন্তব্য চালু নেই