মেইন ম্যেনু

এগিয়ে ইতালি, ছাড় দেবে না ইংল্যান্ডও

ফিফা ব্রাজিল বিশ্বকাপের ২০তম আসরের তৃতীয় দিন আজ শনিবার। এ দিন তিনটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে।

বাংলাদেশ সময় রাত ১০টায় হেলো হরিজোন্ত স্টেডিয়ামে ‘সি’ গ্রুপের প্রথম খেলায় কলোম্বিয়ার মুখোমুখি হবে গ্রিস। এরপর রাত ১টায় ফোর্তালেজা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে গ্রুপ বি এর প্রথম ম্যাচ। এতে উরুগুয়ের মুখোমুখি হবে কোষ্টারিকা। বাংলাদেশ সময় সকাল ৪টায় ডি গ্রুপের প্রথম খেলায় ইংল্যান্ডের বিপক্ষে মাঠে নামবে ২০১০ এর বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ইতালি ।

শনিবারের তিন ম্যাচের মধ্যে এটিই বিগ ম্যাচ। এর আগে ইংল্যান্ড- ইতালি ১১ বার আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে মুখোমুখি হয়। যার মধ্যে ইংল্যান্ডের জয় মাত্র ২টিতে, হার ৬ বার। বাকি ৩ ম্যাচ ‘ড্র’ হয়।

ইতালি-ইংল্যান্ডের সর্বশেষ দেখা দুই বছর আগের ইউরোতে। সেই ম্যাচটি টাইব্রেকার পর্যন্ত গড়ালেও ১২০ মিনিটজুড়ে আধিপত্য ছিল আজ্জুরিদের। বিশেষ করে আন্দ্রেয়া পিরলো যেভাবে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নিজের জাদুকরী পায়ে ধরে রেখেছিলেন, ইংলিশরা নিশ্চিতভাবেই তা ভোলেননি। সেই পিরলো আছেন আছেন দলে। আছেন জানলুইজি বুফন ও দানিয়েল দে রস্সি। আট বছর আগের বিশ্বকাপজয়ের তিন সেনানী। ইতালির শক্তির বড় এক একটা অংশ এই অভিজ্ঞ তিন জনে। সঙ্গে মারিও বালোতেল্লির প্রতিভার দীপ্তি।

গত বিশ্বকাপের প্রথম রাউন্ডে তারা বাদ পড়লেও ইউরোর ফাইনালে উঠে আবার ইঙ্গিত দিয়েছে কক্ষপথে ফেরার। গত বছরের কনফেডারেশন্স কাপের সেমিফাইনালেও উঠেছিল তারা।

ইতালির মতো অভিজ্ঞতায় আস্থা না রেখে তারুণ্যের জয়গানই রয় হজসনের স্কোয়াডে। গত বিশ্বকাপের দ্বিতীয় রাউন্ডে ১-৪ গোলে জার্মানির কাছে হেরে বিদায় নেওয়া একাদশের তিনজনই কেবল হয়তো আজ থাকবেন প্রথম একাদশে। ওয়েইন রুনি, স্টিভেন জেরার্ড ও গ্লেন জনসন। অ্যাডাম লালানা, রাহিম স্টার্লিং, ড্যানিয়েল স্টারিজ, জার্ডান হেন্ডারসনেদের মতো তরুণ খেলোয়াড়রা আজ বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচেই মুখোমুখি অগ্নিপরীক্ষায়।

ব্রাজিলের পর সবচেয়ে বেশি চারবার বিশ্বকাপ জেতা ইতালি যে তাদের প্রতিপক্ষ! তবে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে একটি সুবিধা আছে তাদের- বিশ্বকাপে কখনোই এই দলটির কাছে হারেনি আজ্জুরি। তবে ইতিহাসের সাক্ষ্যে ‘স্লো স্টার্টার’ হিসেবে একটা তকমা তাদের গায়ে লেগে আছে। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে আজকের ম্যাচে সেটিও ঝেড়ে ফেলার চ্যালেঞ্জ ইতালির।

১৯৯০ বিশ্বকাপে তৃতীয় স্থান নির্ধারনী ম্যাচে ইংলিশদের কাছে ২-১ গোলে হেরেছিল ইতালি। পরিসংখ্যান বিচারে ইতালিকে ফেভারিট হলেও ওয়েরিন রুনিরা ২০১২ ইউরোর প্রতিশোধ নিতে চাইবে এই ম্যাচে। তবে থ্রি লায়ন্সকে বধ করতে হলে আমাজোনিয়ায় সেরাটা দিতে হবে রুনিদের।

ব্রাজিলিয়ান বিশ্বখ্যাত রেইনফরেস্ট আমাজানের কাছাকাছি অবস্থিত মানাউস স্টেডিয়ামে এ ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে।






মন্তব্য চালু নেই