মেইন ম্যেনু

একদিনে ৯ জনের মৃত্যু, পাক হানার বদলা নিতে তৈরি ভারতীয় সেনাবাহিনী

ভারত-পাক নিয়ন্ত্রণরেখায় পাকিস্তানি হামলায় প্রাণ হারিয়েছেন ভারতীয় সেনাবাহিনীর এক জওয়ান ও সীমান্ত রক্ষী বাহিনীর এক কনস্টেবল। সকালের দিকে এই ঘটনার পরে দক্ষিণ কাশ্মীরের কুলগাঁওতে জঙ্গি হামলায় ২ ব্যাঙ্ক কর্মী ও ৫জন পুলিশ কর্মীও নিহত হয়েছেন। লুট হয়েছে ব্যাঙ্কের ক্যাশ ভ্যানও।

ভারতীয় সেনাবাহিনী সূত্রে জানা গিয়েছে, সকাল সাড়ে ৮টা নাগাদ নিয়ন্ত্রণরেখার কৃষ্ণ ঘাঁটি সেক্টরের দু’টি পোস্টে পাকিস্তানি সেনাবাহিনী মর্টার হামলা চালায়। একই সঙ্গে পাকিস্তানি সেনা ও জঙ্গিদের নিয়ে গঠিত বর্ডার অ্যাকশন টিম বা ব্যাট সীমান্তে দু’জন সেনাকে হত্যা করে।

এই ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে ২২ শিখ ইনফ্যান্ট্রির নায়েব সুবেদার পরমজিৎ সিংহ ও বিএসএফ-এর হেড কনস্টেবল প্রেম সাগরের। অন্য এক বিএসএফ কনস্টেবল রাজিন্দর সিংহও এই ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছেন।
শনিবারই পাক সেনাপ্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়া নিয়ন্ত্রণরেখার কয়েকটি অঞ্চলে ঘুরে যাওয়ার পরেই এই হামলার ঘটনা ঘটল। সোমবারের ঘটনার পরেই দাবি উঠতে শুরু করেছে, অবিলম্বে ভারত এই হামলার বদলা নিক।

ভারতীয় সেনাবাহিনীর তরফেও জানানো হয়েছে, এই হামলার উপযুক্ত জবাব দেবে সেনাবাহিনী। তারা এই হামলার বদলা নেওয়ার জন্য তৈরি। সেনা সূত্রে খবর, শুধুমাত্র এপ্রিলেই অন্তত পাঁচটি সংঘর্ষ বিরতি লঙ্ঘনের ঘটনা ঘটেছে। ২০১৬ সালে নিয়ন্ত্রণরেখায় ২২৮টি ও ভারত-পাক সীমান্তে ২২১টি সংঘর্ষ বিরতি লঙ্ঘনের ঘটনা ঘটেছে।






মন্তব্য চালু নেই