মেইন ম্যেনু

উখিয়ায় গাড়ী বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছে কলেজ ছাত্রীরা

কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার বিভিন্ন স্থানের স্কুল কলেজ ও মাদ্রাসা পড়–য়া ছাত্রীরা দীর্ঘদিন ধরে গাড়ী বিড়ম্বনার শিকার হয়ে আসছে। ছাত্রী ছাউনীর অভাবে শত শত ছাত্রীকে প্রতিদিন রোদ, বৃষ্টি উপেক্ষা করে রাস্তার ধারে ঘণ্টার পর ঘণ্টা গাড়ির জন্য অপেক্ষা করতে দেখা যাচ্ছে। তাও আবার চালকের দয়ার উপর নির্ভর করছে ছাত্রীদের সময়মতো বাড়ি যাওয়া আর না যাওয়া।

উখিয়া মহিলা কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের প্রতিবন্ধি ছাত্রী রুবি আক্তার জানায়, দীর্ঘ এক কিলোমিটার পায়ে হেঁটে প্রধান সড়কের খুনিয়াপালং রাস্তার মাথায় গাড়ির জন্য অপেক্ষা করতে হয়। আবার কলেজ ছুটি শেষে উখিয়া ষ্টেশনে সড়কের পাশে গাড়ির জন্য দীর্ঘ সময় অপচয় করতে হয়। সে আরো জানায়, অনেক সময় চালক গাড়িতে না তুললে বাড়ি পৌছতে সন্ধ্যা হয়ে যায়। যে কারণে মা-বাবাকে অস্থির সময় কাটাতে হয়। এভাবে কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্রী সুফিয়া খানম জানায়, একদিকে কলেজ যাওয়ার পথে ফরেষ্ট রোডে যানজটের কারণে হেটে যাওয়া দুষ্কর হয়ে পড়ে। অন্যদিকে ছাত্রী ছাউনী না থাকায় ব্যস্ততম যানজটপূর্ণ এলাকায় ঝুঁকি নিয়ে গাড়ির জন্য ঘণ্টার পর ঘন্টা অপেক্ষা করতে হয়।

উখিয়া প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন এলাকায় একটি ছাত্রী ছাউনী থাকলেও সেটি দিনভর দখলে থাকে পথচারী ও বখাটেদের। তাই সেটি নিরাপদ মনে না করে ছাত্রীদের বাধ্য হয়ে জনসমাগমপূর্ণ এলাকায় গাড়ির জন্য অপেক্ষা করতে হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ হামিদুল হক চৌধুরী ছাত্রী ছাউনীর অভাবের কথা স্বীকার করে বলেন, ভূমি অফিসের পরিত্যক্ত স্থানে একটি ছাত্রী ছাউনী নির্মাণ করা হলে কলেজ, স্কুল ও মাদ্রাসার ছাত্রীরা নিরাপদে গাড়ির জন্য অপেক্ষা করতে পারত। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হিল্লোল বিশ্বাস বলেন, বিষয়টি কলেজ অধ্যক্ষের সাথে আলোচনা করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।






মন্তব্য চালু নেই