মেইন ম্যেনু

আইনশৃঙ্খলা বাহিনী যাকে নেয়, সে আর ফেরে না

বর্তমান সরকার দেশকে পুলিশি রাষ্ট্রে পরিণত করেছে, এমন দাবি করে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব বলেছেন, সরকারের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী যাকে ধরে নিয়ে যায়, তাকে আর খুঁজে পাওয়া যায় না। এভাবে কোনো সভ্য দেশ চলতে পারে না।

বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ৫০তম জন্মদিন উপলক্ষে বগুড়ায় এক অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন মির্জা ফখরুল। জেলা বিএনপির ১০ দিনের অনুষ্ঠানমালার শেষ দিনে ‘অকুতোভয় দেশনায়ক উৎসব’ অনুষ্ঠানটি শহরের আলতাফুন্নেছা খেলার মাঠে আয়োজিত হয়।

সাবেক মন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকী ও প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম সরকারের গোপন খবর ফাঁস করে দিয়েছেন বলে মন্তব্য করেন মির্জা ফখরুল। তিনি দাবি করেন, “ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটূক্তির জন্য নয়, প্রধানমন্ত্রীর ছেলে সম্পর্কে গোপন তথ্য ফাঁস করার কারণেই লতিফ সিদ্দিকীকে সরিয়ে দেয়া হয়েছে। সরকারের কাছ থেকে জয়ের প্রতি মাসে দুই লাখ ডলার বেতন নেয়ার তথ্য ধামাচাপা দিতে সরকার নতুন করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে।” জয়ের ডলার নেয়ার তথ্য মিথ্যা হলে সরকারকে নতুন করে প্রজ্ঞাপন জারি করতে হতো না বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব বলেন, “এইচ টি ইমাম নিজের অজান্তেই সরকারের গোমর ফাঁস করে দিয়েছেন। তিনি (এইচ টি ইমাম) বলেছেন, ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের বিসিএসের লিখিত পরীক্ষায় পাস করলেই চলবে। বাদ বাকি সরকার দেখবে। এর মাধ্যমে এইচ টি ইমাম সরকারের হাঁড়ির খবর ফাঁস করে দিয়েছেন।”

সংবিধান রক্ষার কথা বলে ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের মাধ্যমে আওয়ামী লীগ দেশে স্বৈরতন্ত্র কায়েম করেছে, এমন অভিযোগ করে মির্জা ফখরুল বলেন, নির্বাচনকালীন মাত্র তিন মাসে বিএনপির নেতৃত্বাধীন জোটের ৩১০ জন নেতা-কর্মীকে হত্যা করা হয়েছে। সরকার দেশকে পুলিশি রাষ্ট্রে পরিণত করেছে। দেশের আইনশৃঙ্খলা বলতে কিছুই নেই। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী যাকে ধরে নিয়ে যায়, তাকে আর খুঁজে পাওয়া যায় না। এভাবে কোনো সভ্য দেশ চলতে পারে না।”

বগুড়া জেলা বিএনপির সভাপতি সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে এই উৎসবে অন্যান্যের মধ্যে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন, সহসভাপতি ফজলুল বারী তালুকদার প্রমুখ নেতা বক্তব্য দেন।
সন্ধ্যায় উৎসব মঞ্চে সংগীত পরিবেশন করেন কণ্ঠশিল্পী মনির খান, রিজিয়া পারভীন, কনকচাঁপা, ইথুন বাবু প্রমুখ।






মন্তব্য চালু নেই