মেইন ম্যেনু

অবশেষে পেসারদের জন্য বিসিবির ‘উপহার’

গত ১১ মে রাইজিংবিডি এক প্রতিবেদনে জানায়, দেশের পেসারদের নিয়ে অচিরেই কাজ শুরু করবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। দেশের শীর্ষ পেসারদের পাশাপাশি উঠতি পেসারদের নিয়ে হবে ‘বিসিবির স্পেশাল পেস ক্যাম্প।’ শেষ পর্যন্ত তা হচ্ছে।

ধারণা করা হচ্ছে, জুনের প্রথম সপ্তাহ থেকেই শুরু হবে পেসারদের ক্যাম্প। পেসারদের পাশাপাশি স্পেশাল ক্যাম্প হবে ব্যাটসম্যান, স্পিনার ও উইকেটরক্ষকদেরও। এই চারটি বিভাগ মিলিয়ে গঠিত হবে বিসিবির এলিট প্রোগ্রাম।

ওয়ানডেতে বাংলাদেশ যেভাবে উন্নতি করেছে সেভাবে টেস্টে করেনি, তা আরেকবার প্রমাণ হয়েছে পাকিস্তানের বিপক্ষে হোম সিরিজে। টেস্ট অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম অন্য দশজনের মতো বিশ্বাস করেন, টেস্ট ম্যাচ জিততে প্রতিপক্ষের ২০ উইকেট প্রয়োজন। কিন্তু বাংলাদেশের বোলিং আক্রমণ কি ২০ উইকেট নেওয়ার মতো? প্রশ্নটা বারবার ঘুরপাক খাচ্ছে, কিন্তু উত্তর জানা নেই।

দলপতি মুশফিকুর রহিমও বোলিং আক্রমণ নিয়ে কিছুটা অসন্তুষ্ট। ভবিষ্যতে এই ধরনের পরিস্থিতি এড়াতে পেস বোলারদের নিয়ে ৮ সপ্তাহের এলিট প্রোগ্রাম হাতে নিয়েছে বিসিবি। দেশের সেরা কোচ সারওয়ার ইমরান এই প্রোগ্রামের দায়িত্বে থাকবেন। তার সঙ্গে থাকবেন একজন বিদেশি কোচও।

সূত্র জানিয়েছে, জাতীয় দলের বোলিং কোচ হিথ স্ট্রিকের সঙ্গে কথা বলছে বিসিবি। জাতীয় দলের পাশাপাশি পেসারদের ক্যাম্পে সহায়তা করার প্রস্তাব পাচ্ছেন স্ট্রিক।

একনজরে এলিট প্রোগ্রাম ডাক পাওয়া পেসাররা : আবুল হাসান রাজু, আল আমিন হোসেন, রবিউল ইসলাম, শুভাশীষ রায়, শফিউল ইসলাম, মোহাম্মদ সোহেল, আবু জায়েদ চৌধুরী, মেহেদি হাসান, কামরুল ইসলাম, দেওয়ান সাব্বির আহমেদ, তাসকিন আহমেদ, রুবেল হোসেন, মাশরাফি বিন মুর্তজা, আবু হায়দার, অনিক ইসলাম, সোহাগ রেজা, মুস্তাফিজুর রহমান, মুক্তার আলি।






মন্তব্য চালু নেই