মেইন ম্যেনু

১৭০ শব্দে ৫০ লক্ষ বাক্য গঠন!

১৭০ শব্দ দিয়ে ৫০ লক্ষ বাক্য! পরিসংখ্যানটি অবিশ্বাস্য মনে হলেও, মাত্র ১৭০টি ইংরেজি শব্দ দিয়ে ৫০ লক্ষ বাক্য তৈরি করেছেন ভারতের মহারাষ্ট্রের প্রত্যন্ত গ্রামের এক শিক্ষক।

যে কীর্তি জায়গা করে নিয়েছে ইন্ডিয়া বুক অব রেকর্ডস্-এ। তবে কোন রেকর্ডের দিকে তাকিয়ে এই অসামান্য কাজটি করেননি দাহানু গ্রামের বালাসাহেব চহ্বন। তার উদ্দেশ্য ছিল ছাত্রদের ইংরেজি শেখানো। আরও স্পষ্ট করে লিখলে ইংরেজি ভাষাটিকে দখলে রাখার কৌশল শেখানো। আর তেমনটা করতে গিয়েই অভূতপূর্ব এই কাণ্ডটি ঘটিয়ে ফেলেন মহারাষ্ট্রের শিক্ষক! মুম্বই থেকে ১১০ কিলোমিটার দূরের গ্রাম। হাতে গোনা সরকারি স্কুল। মারাঠি এই গ্রামে পড়ুয়াদের ইংরাজি শেখাতে গিয়ে বেজায় সমস্যায় পড়তে হয় বালা সাহেবকে। কারণ কোন মতে ‘এ বি সি ডি’ এবং গুটিকয়েক শব্দ শিখলেও, বাক্য গঠন করতে গিয়ে গলদঘর্ম অবস্থা পড়ুয়াদের! এই পরিস্থিতিতে পড়ুয়াদের ইংরেজি শোধরাতে বাঁধা-ধরা পাঠ্য বইয়ের বাইরে বিকল্প পথের সন্ধানে নামেন বালা সাহেব। শুরু করেন বাক্য গঠন। বালা সাহেবের বক্তব্য, প্রথমে একই শব্দ দিয়ে একাধিক বাক্য তৈরি করতে শুরু করেন তিনি। যেমন, ‘হি ইজ আ গুড বয়’, ‘শি ইজ আ গুড গার্ল’। তার পর আগের শব্দের সঙ্গে নতুন শব্দ যুক্ত করে বাক্য গঠন। সব শেষে একই শব্দকে কখনও নামপদ, কখনও ক্রিয়াপদ, কখনও বিশেষণ হিসেবে ব্যবহার করে বাক্য গঠন। কে এল পণ্ডা হাই স্কুলের এই ইংরাজি শিক্ষকের বক্তব্য, ‘ছাত্রছাত্রীদের জন্য কৌশল তৈরির কথা মাথায় রেখে কাজ শুরু করে ছিলাম। কিন্ত্ত পরে তা নেশায় পরিণত হয়। তখন চেষ্টা করি যতটা কম সংখ্যক শব্দ দিয়ে যত বেশি সংখ্যক বাক্য গঠন করা যায়। ৫০ লক্ষ বাক্য গঠনের পরই থামি। শিক্ষকের বক্তব্য, ২০১০ সালে এই কাজ শুরু করেন তিনি। শেষ হয় ২০১৬-এ। ওই বছর ডিসেম্বরেই ইন্ডিয়া বুক অফ রেকর্ডস চিঠি দিয়ে শিক্ষককে জানান, ‘এত কম শব্দ দিয়ে এত বিপুল সংখ্যক বাক্য এর আগে কেউ তৈরি করেননি। শুধু রেকর্ডই নয়। শিক্ষকের এই কীর্তিতে উপকৃত পড়ুয়ারাও। স্কুল কর্তৃপক্ষের বক্তব্য, বালা সাহেবের তৈরি ‘বাক্য-কোষ’ থেকে নিত্যনতুন বাক্য শিখতে পারছে পড়ুয়ারা। পাশাপাশি, তার দেখানো কৌশলে সহজে বাক্যগঠনও করতে পারছে তারা। শিক্ষার্থীদের উপকার করতে পেরে খুশি শিক্ষকও। সূত্র:এই সময়।






মন্তব্য চালু নেই