মেইন ম্যেনু

৮৬’র ম্যারাডোনা আর ১৪’র মেসি

নেতা কাকে বলে? একজন নেতা কিভাবে গোটা দলের মানসিকতা ও ক্ষুধা বদলে দিতে পারেন তা চলতি বিশ্বকাপে লিওনেল মেসি বুঝিয়েছেন। নকআউট পর্বে এখনো যদিও গোলের দেখা পাননি, কিন্তু গ্রুপ পর্বের বৈতরণী তো তার পায়েই পার হয়েছে আর্জেন্টিনা। এখনো দিয়াগো ম্যারাডোনা নামক ফুটবল সূর্য হয়ে উঠতে পারেননি মেসি। কিন্তু ফুটবল বিধাতা চাইলে তা হতে আর মাত্র ৯০ মিনিটই যথেষ্ঠ। রোববার মারকানায় ফুটবল সুধায় দলকে আর মাত্র দেড় ঘণ্টা সুরক্ষিত রাখতে পারলেই স্বদেশীকে স্পর্শ করবেন মেসি। নাকি তাকেও ছাপিয়ে যাবেন। কিংবা বিজিত হলেই হয়ে উঠবেন অবিশ্বাস্য কিংবদন্তি-গাথার নবতর চরিত্র। তার আগে ১৯৮৬ সালের বিশ্বকাপে ম্যারাডোনা আর ২০১৪ সালের বিশ্বকাপে মেসির পারফরম্যান্স এক ঝলকে চোখ বুলিয়ে নেই-

লিওনেল মেসি:
সাল: ২০১৪
বয়স: ২৬
জার্সি: ১০
দলে ভূমিকা: অধিনায়ক
মাঠে অবস্থান: ৪৫৩ মিনিট
গোল: ৪টি
গোলের পাস: ১টি
গোলের সুযোগ তৈরি: ১৯বার
ড্রিবল: ৬৫
মেসি মুহূর্ত: অবিশ্বাস্য সোয়ার্ভিং ফ্রি-কিকে নাইজেরিয়ার বিপক্ষে গোল।

দিয়াগো ম্যারাডোনা:
সাল: ১৯৮৬
বয়স: ২৫
জার্সি: ১০
দলে ভূমিকা: অধিনায়ক
মাঠে অবস্থান: ৬৩০ মিনিট
গোল: ৫টি
গোলের পাস: ৫টি
গোলের সুযোগ তৈরি: ২৭টি
ড্রিবল: ৯০
ম্যারাডোনা মুহূর্ত: ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে কোয়ার্টার ফাইনালে ইংল্যান্ডের ছয় ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে রুপকথার গোল।






মন্তব্য চালু নেই