মেইন ম্যেনু

৭দিনের মধ্যে আশাশুনিকে মুাদকমুক্ত করা হবে -সাতক্ষীরার এসপি

আব্দুর রহমান, সাতক্ষীরা ॥ সকল শ্রেণীর মানুষের অংশ গ্রহণে উন্মুক্ত আলোচনা সভা ওপেন হাউজ ডে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণে সাতক্ষীরা পুলিশ সুপার চৌধুরী মঞ্জুরুল কবির চৌধুরী বলেন, আগামী ৭ দিনের মধ্যে আশাশুনিকে মানকমুক্ত উপজেলায় পরিণত করা হবে। আগামী মাস থেকে পুলিশিং কমিটির কার্যক্রম শুরু করা হবে এবং এমাসেই বিট পুলিশিং কার্যক্রম শুরু হবে। সাতক্ষীরা জেলাকে সন্ত্রাসমুক্ত একটি শান্তিপূর্ণ জনপদে রূপান্তরিত করতে চাই। জন প্রতিনিধ ও সচেতন মানুষের সহযোগিতা কামনা করে তিনি বলেন, সুযোগসন্ধানীরা লাভ খুজে থাকে। মিথ্যা অভিযোগ নিয়ে নানান তদবীর সহকারে থানা-পুলিশী করে থাকে। এমনকি অপরাধীদের রক্ষা করতে প্রত্যায়নপত্র কারবারও চলছে। অপরাধী ও দালালচক্রকে সতর্ক করে দিয়ে তিনি আরও বলেন, কোন থানায় দালালের প্রশ্রয় দেয়া হবেনা, থানায় কোন দালাল থাকবে না। মিথ্যা হয়রানীমূলক মামলার উল্লেখ করে তিনি বলেন, অপরাধীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে ঠিকই, কিন্তু কেউ মিথ্যা অভিযোগ নিয়ে কাউকে হয়রানীর চেষ্টা করলে তাকেও ছাড় দেয়া হবে না। মাদক বিক্রেতা, মাদক সেবীদের রক্ষা নাই উল্লেখ করে তিনি বলেন, আগামী ১ সপ্তাহের মধ্যে যদি কেউ অপরাধ স্বীকার করে সৎ পথে ফিরে আসার শপথ নিয়ে সংশোধনের অঙ্গীকার করে তাদের ক্ষমা করা হবে, এরপর আর কারো রেহাই নাই। একবার ফিরে আসার অঙ্গীকার ভঙ্গ করলে তাদের কোন উপায় থাকবেনা। রবিবার বিকালে আশাশুনি মাধ্যমিক বিদ্যালয় চত্বরে অনুষ্ঠিত ওপেন হাউজ ডেতে তিনি প্রধান অতিথির ভাষণে উপরোক্ত কথা বলেন। আশাশুনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আহসান হাবিব পিপিএম এন সভাপতিত্বে ও অসীম চক্রবর্তীর পরিচালনায় সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন এএসপি (কালিগঞ্জ সার্কেল), আশাশুনি উপজেলা চেয়ারম্যান এ বি এম মোস্তাকিম। অনুষ্ঠানে প্রশ্ন উপস্থাপন করেন ইউপি চেয়ারম্যান আবু হেনা সাকিল, প্রাক্তন চেয়ারম্যান স ম সেলিম রেজা, বিভিন্ন এলাকা থেকে আগত শওকত হোসেন, শেখ ইনামুল হক, সোহরাব হোসেন মেম্বার, ধর্মদাশ মিশ্র, মিলন, ফরিদা পারভিন. আজগার আলি, মুনছুর আলি প্রমুখ। অনুষ্ঠানে ১৫ জন মাদক বিক্রেতা ও মাদকসেবী কলঙ্কিত জীবন থেকে ফিরে আমার অঙ্গীকার ব্যক্ত করে আত্মসমর্পন করেন। এসময় উপজেলা চেয়ারম্যান তাদেরকে ফুল দিয়ে বরণ করে দেন। অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন আলহাজ্ব ক্বারী আঃ বারী ও গীতা পাঠ করেন রমেস চন্দ্র বসাক।






মন্তব্য চালু নেই