মেইন ম্যেনু

৫ বছরে ১০৯৩টি রেল দুর্ঘটনা

২০০৯ সাল থেকে জুন ২০১৪ পর্যন্ত সারাদেশে মোট একহাজার ৯৩টি রেল দুর্ঘটনা ঘটেছে। এসব দুর্ঘটনায় আর্থিক ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ১৬ কোটি ৫৫ লাখ ৪৮ হাজার ৮৬৪ টাকা।

সোমবার দশম জাতীয় সংসদের চতুর্থ অধিবেশনে প্রশ্নোত্তর পর্বে এম আবদুল লতিফের এক প্রশ্নের উত্তরে রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক সংসদকে এ তথ্য জানান।

মন্ত্রী বলেন, ‘সমগ্র বাংলাদেশে রেলওয়েতে লাইনচ্যুতিসহ মেইন লাইন ও শাখা লাইনে ২০০৯-১০ সালে ৩০৮টি, রেলমন্ত্রী মুজিবুল ৫ বছরে ১০৯৩টি রেল দুর্ঘটনা২০১০-১১ সালে ২২৪টি, ২০১১-১২ সালে ১৮২টি, ২০১২-১৩ সালে ১৭৬টি এবং ২০১৩-১৪ সালে মোট ২০৩টি দুর্ঘটনা ঘটে। এসব দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন ১৫২ জন এবং আহত হয়েছেন ৩৮৬ জন। এসব দুর্ঘটনায় আর্থিক ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ১৬ কোটি ৫৫ লাখ ৪৮ হাজার ৮৬৪ টাকা।’

মো. ফরিদুল হক খানের এক প্রশ্নের উত্তরে রেলপথ মন্ত্রী বলেন, ‘রেললাইনের ভারবাহী ক্ষমতা আন্তর্জাতিক মানদণ্ডে উন্নীত করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। ব্রডগেজ এবং ডুয়েলগেজ রেললাইন নির্মাণ বা পুনর্বাসন কাজে ৬০ কেজি রেল ব্যবহার করার জন্য বাংলাদেশ রেলওয়ে সম্প্রতি সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। এই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।’

নিজাম উদ্দিন হাজারীর অপর প্রশ্নের উত্তরে মুজিবুল হক বলেন, ‘ঢাকাসহ দেশের অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ শহরগুলোতে কমিউটার ট্রেন সার্ভিস চালু করার জন্য বর্তমান সরকারের গত মেয়াদে অর্থ্যাৎ ২০১৩ সালে সম্পূর্ণ সরকারি (জিওবি) অর্থায়নে চীন হতে বাংলাদেশ রেলওয়ের জন্য ২০ সেট এমজি ডিজেল ইলেকট্রিক মাল্টিপল ইউনিজ (ডেমু) সংগ্রহ করা হয়েছে।’

এছাড়া প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় রুটে ডেমু ট্রেন চালু করা হয়েছে। এতে রাজধানীসহ দেশের অন্যান্য জনবহুল শহরগুলোর যনজট অনেকাংশ হ্রাস পেয়েছে। ২০ সেট ডেমু সংগ্রহের জন্য মোট ৬৮৬ কোটি ৫৯ লাখ টাকা ব্যয় হয়েছে, বলেও সংসদকে জানান মন্ত্রী।






মন্তব্য চালু নেই