মেইন ম্যেনু

হামাস হামলার জবাবে ইসরায়েল হামলা, নিহত ২৫

ইসরায়েলি শহরগুলোতে ফিলিস্তিনি জঙ্গীরা আরো রকেট নিক্ষেপের ঘটনা ঘটিয়েছে। এদিকে ইসরায়েল বাহিনীও গাজা উপত্যকায় আকাশ পথে এক ডজনেরও বেশি সংখ্যকবার আক্রমণ চালিয়েছে।

ইসরায়েল জানিয়েছে, দেশটির দক্ষিণাঞ্চলে রাতে চারটি রকেট হামলা হয়েছে এবং তেল আবিব ও আশকেলনে বুধবারও এহামলা অব্যাহত আছে।

অপরদিকে এ হামলার উত্তরে গাজা উপত্যকায় আকাশ পথে সারারাতে ১শ ৬০টি আক্রমণ চালান হয়েছে বলে এক বিবৃতিতে স্বীকার করেছে ইসরায়েল সরকার।

গাজায় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানায়, ইসরায়েলি হামলায় ২৫ জন ফিলিস্তিনি মারা গেছেন। এছাড়া আরো ৭০ জন গুরুতর আহত হয়েছেন।

নিহতদের মধ্যে চার জান নারী এবং তিন শিশুও আছে বলে জানায় মন্ত্রণালয়।

ফিলিস্তিনি হামাস বাহিনী হুমকি দিয়ে জানিয়েছে, সকল ইসরায়েলিই এখন তাদের টার্গেট।

ইসায়েল সেনাবাহিনী জানিয়েছে, সারারাতে ১১৮টি গোপন রকেট হামলার আস্তানা, ১০টি হামাস নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্র এবং ১০টি টানেলে হামলা চালিয়েছে তারা।

‘অপারেশন প্রেটেক্টিভ এজ’ নামে এই অপারেশনে গাজা উপত্যকায় ৪৪০টি টার্গেটে হামলা চালান হয়েছে বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্য, গত সপ্তাহে বুধবার মধ্যরাতে ফিলিস্তিনি কিশোর মোহাম্মেদ আবু খেদাইরকে জেরুজালেম থেকে অপহরণ ও পরে হত্যার ঘটনার পর থেকেই জেরুজালেমে ইসরায়েলি নিরাপত্তা বাহিনীর সাথে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে ফিলিস্তিনি অধিবাসীরা। খেদাইরের পোস্টমর্টেম রিপোর্ট থেকে জানা যায়, তাকে প্রথমে মাথায় শক্ত কিছু দিয়ে আঘাত করা হয় এবং পরে জীবন্ত আগুনে পুড়িয়ে মারা হয়। পোস্টমর্টেমে খেদাইরের ফুসফুসে ধোঁয়া পাওয়া গেছে, যা প্রমাণ করে দগ্ধ হওয়ার সময়ও সে শ্বাস নিচ্ছিল।

খেদাইরের হত্যায় জেরুজালেমে ইসারায়েলি নিরাপত্তা বাহিনীর সাথে ফিলিস্তিনি অধিবাসীদের সংঘাত শুরু হয়। শুক্রবার তার দাফনের পর এ সংঘর্ষ আরো ব্যাপক আকার ধারণ করে।

সূত্র: বিবিসি/সিএনএন






মন্তব্য চালু নেই