মেইন ম্যেনু

স্মার্ট পণ্য বানাচ্ছেন তরুন বাংলাদেশী প্রকৌশলী দম্পতি সাইফুল্লাহ-তানিয়া

স্মার্ট বাতি নিয়ে পরীক্ষা করছে অ্যাপলম্ব টেক বিডি নামের একটি প্রতিষ্ঠান। ঘরে ঢুকলেই স্বয়ংক্রিয়ভাবে জ্বলে উঠবে বাতি আর বাইরে গেলে নিভে যাবে। আবার ঘর থেকে বের হওয়ার সময় মোবাইল ফোন দিয়েই বিদ্যুতের সংযোগ বন্ধ করে দেওয়া যাবে। ঘরদোর হবে এমনই স্মার্ট। স্মার্ট প্রযুক্তিপণ্য তৈরি ও প্রযুক্তি সেবা দিতে কাজ করছে বাংলাদেশের অ্যাপলম্ব টেক বিডি নামের একটি প্রতিষ্ঠান। প্রযুক্তি নিয়ে গবেষণার জন্য প্রতিষ্ঠানটি গড়ে তুলেছেন প্রকৌশলী দম্পতি মো. সাইফুল্লাহ ও তানিয়া রহমান। তাঁদের নেতৃত্বে প্রতিষ্ঠানটিতে ৩০ জনেরও বেশি তরুণ প্রকৌশলী কাজ করছেন। স্মার্ট হোম, স্মার্ট মিটার, ইনডোর পজিশনিং সিস্টেম, সিভিল ড্রোনের মতো বিভিন্ন পণ্য নিয়ে গবেষণা করছেন তাঁরা।
সাইফুল্লাহ ও তানিয়া রহমান দুজনই বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় ও জার্মানির ইউনিভার্সিটি অব ক্যাসেল থেকে পড়াশোনা করেছেন। সাইফুল্লাহ কাজ করেছেন ইনফেনন, সিমেন্স ও ইনটেলের মতো প্রতিষ্ঠানে। জার্মানিতেই নিজেদের উদ্যোগে এই দম্পতি গড়ে তুলেছেন সাইনপালস নামের একটি গবেষণামূলক প্রতিষ্ঠান। ইতিমধ্যে এই প্রতিষ্ঠানটি ইউরোপে বিভিন্ন প্রযুক্তি সেবা দিচ্ছে। এ প্রতিষ্ঠানটির আদলেই বাংলাদেশে তৈরি করেছেন অ্যাপলম্ব টেক বিডি। রাজধানীর বসুন্ধরায় প্রতিষ্ঠানটির কার্যালয়। সেখানেই বিভিন্ন প্রযুক্তিপণ্য উদ্ভাবনের কাজ চলছে।
মো. সাইফুল্লাহ বলেন, ‘বিদেশি প্রতিষ্ঠানে কাজ করলেও নিজের উদ্যোগে একটি প্রতিষ্ঠান দাঁড় করাতে চেয়েছিলাম। সাইনপালসের পর আমি বাংলাদেশে তৈরি করেছি অ্যাপলম্ব টেক বিডি। এর লক্ষ্য হলো সম্পূর্ণ দেশীয় প্রযুক্তি ও আমাদের দেশের মেধাবীদের কাজে লাগিয়ে গবেষণা করা ও প্রযুক্তিপণ্য উদ্ভাবন করা।’ বাংলাদেশে কারখানা গড়ে তোলার কথাও জানান তিনি।

স্মার্ট বাতি নিয়ে পরীক্ষা করছে এ্যাপলম্ব বিডি নামের বাংলাদেশী প্রতিষ্ঠান

স্মার্ট বাতি নিয়ে পরীক্ষা করছে এ্যাপলম্ব বিডি নামের বাংলাদেশী প্রতিষ্ঠান

মোবাইল থেকে স্মার্ট মিটারের ব্যবহার দেখাচ্ছেন অ্যাপলম্ব টেক বিডির এক প্রকৌশলী। ছবি: মো. মিন্টু হোসেনসাইফুল্লাহ আরও বলেন, ‘ইতিমধ্যে আমার প্রতিষ্ঠান বেশ কিছু নতুন প্রযুক্তি উদ্ভাবন করেছে, যা পরীক্ষামূলকভাবে বেশ কয়েকটি স্থানে চালু রয়েছে। আমদের পণ্যের মধ্যে রয়েছে স্মার্ট হোম সলিউশন। এটি স্মার্টফোন অথবা কম্পিউটারের মাধ্যমে বাতি, পাখা, এসিসহ ঘরের সব ইলেকট্রনিক যন্ত্র পর্যবেক্ষণ ও নিয়ন্ত্রণ করার একটি বিশেষ সেবা। স্মার্ট হোম সেবা ব্যবহার করে বাড়ির বিদ্যুৎ, গ্যাস ও পানির অপচয় ৩০ শতাংশ পর্যন্ত রোধ করা সম্ভব। এ ছাড়া এই পদ্ধতিতে রয়েছে স্বয়ংক্রিয় পর্দা, যা ব্যবহারকারীরা পছন্দ অনুযায়ী বাইরের আলোর পরিমাণ যাচাই ও সমন্বয়ের মাধ্যমে ঘরের ভেতরের আলো নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন। স্মার্ট হোমের স্মার্ট সিকিউরিটি সিস্টেম ব্যবহার করে দূর থেকে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে বাড়ি বা অফিস নজরদারি করা যায়। এ ছাড়া স্মার্ট হোমের মধ্যে রয়েছে স্মার্ট লাইট ব্যবস্থা, যা মানুষের উপস্থিতি বুঝতে পেরে স্বয়ংক্রিয়ভাবে জ্বলতে ও নিভতে পারে।

মোবাইল থেকে স্মার্ট মিটারের ব্যবহার দেখাচ্ছেন অ্যাপলম্ব টেক বিডির এক প্রকৌশলী।

মোবাইল থেকে স্মার্ট মিটারের ব্যবহার দেখাচ্ছেন অ্যাপলম্ব টেক বিডির এক প্রকৌশলী।

সাইফুল্লাহ আরও জানান, অ্যাপলম্ব টেক বিডি স্মার্ট এনার্জি মিটার নামের একটি মিটার উদ্ভাবন করেছেন, যা বাড়ির প্রতিটি বৈদ্যুতিক যন্ত্রের বিদ্যুৎ ব্যবহারের পরিমাণ আলাদাভাবে পর্যবেক্ষণ করতে পারে। এই মিটার ব্যবহার করে গ্রাহক তাঁর মাসিক বিল নিজে থেকেই ঠিক করে নিতে পারবেন এবং সেই অনুযায়ী বিদ্যুৎ ব্যবহার করতে পারবেন। এ ছাড়া গ্রাহকের অনুপস্থিতিতে বিদ্যুৎ সাশ্রয়ের জন্য গ্রাহক তাঁর মোবাইল ফোন থেকেই বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ করতে পারবেন। এ ছাড়া অ্যাপলম্ব টেকের আরেকটি উদ্ভাবন হচ্ছে ইনডোর পজিশনিং সিস্টেম। এই সিস্টেমের মাধ্যমে কোনো স্থাপনার (অনেক বড় কোনো শপিং মল, এয়ারপোর্ট, হাসপাতাল ইত্যাদি) অভ্যন্তরে একজন স্মার্ট ফোন ব্যবহার করে নিজের অবস্থান দেখা যাবে এবং কাঙ্ক্ষিত কোনো দোকান বা সেবাকেন্দ্রের অবস্থান নির্ণয় করাও যাবে।
ঘরে ঢুকলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে বাতির উজ্জ্বলতা বাড়বে আবার ঘর থেকে বের হলে উজ্জ্বলতা কমে যাবে। ছবি: মো. মিন্টু হোসেনড্রোন গবেষণা সম্পর্কে সাইফুল্লাহ জানান, এখন বাংলাদেশে অনুমতি ছাড়া ড্রোন ওড়ানোর সুযোগ নেই। কিন্তু তাঁরা নিজস্ব গবেষণায় নির্মাণ করেছেন উন্নতমানের সিভিল ড্রোন। প্রোগ্রাম অনুযায়ী এই ড্রোন তিন কেজি ওজন নিয়ে আধঘণ্টা উড়তে পারে। এই ড্রোন জরুরি পণ্য সরবরাহ কিংবা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে কাজে লাগানো যাবে। এতে ডিজিটাল স্ক্যানার যুক্ত করে কম সময়ে এবং স্বল্প খরচে নিখুঁতভাবে জরিপের কাজেও লাগানো যাবে।
নতুন নতুন প্রযুক্তিপণ্য উদ্ভাবন ছাড়াও তাঁর প্রতিষ্ঠান টেলি হেলথ সার্ভিস নামে দূরে বসে চিকিৎসাসেবা দেওয়ার একটি পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করছে বলেও জানান সাইফুল্লাহ।

ঘরে ঢুকলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে বাতির উজ্জ্বলতা বাড়বে আবার ঘর থেকে বের হলে উজ্জ্বলতা কমে যাবে।

ঘরে ঢুকলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে বাতির উজ্জ্বলতা বাড়বে আবার ঘর থেকে বের হলে উজ্জ্বলতা কমে যাবে।

কবে নাগাদ পণ্য বাজারে আসবে? সাইফুল্লাহ বলেন, ‘শিগগিরই আমরা নতুন প্রযুক্তিপণ্য ও সেবা নিয়ে বাজারে আসছি। বাংলাদেশের পাশাপাশি এই প্রযুক্তিপণ্য বিদেশেও রপ্তানি করা হবে। অ্যাপলম্ব টেক বিডির তৈরি প্রতিটি পণ্যেই ‘মেড ইন বাংলাদেশ’ লেখা থাকবে।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই