মেইন ম্যেনু

সুন্দরগঞ্জে গাঁজাচাষীসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

নুরুল আলম ডাকুয়া, সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি: গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ থানা পুলিশ পৃৃথক অভিযান চালিয়ে বসতবাড়িতে গাঁজা চাষী মিঠু মিয়া ও নৌ-যোগে ১’শ ৫০ বোতল বিদেশী অফিসার চয়েসসহ আলামিন নামে ২ জনকে গ্রেফতার করেছে। এসময় অফিসার চয়েস বহণে ব্যবহৃত নৌকা জব্দ করা হলেও নদীতে ঝাপ দিয়ে পালিয়েছে অন্যান্য মাদক পাঁচারকারীরা।

থানা সূত্রে জানান যায়, মঙ্গলবার সকালে থানার এসআই ইজার আলী সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে অভিযান চালিয়ে উপজেলা বেলকা ইউনিয়নের পূর্ব-বেলকা চরের সোহরাব সরদারের পুত্র মিঠু মিয়ার বাড়ির উঠান থেকে একটি ফলন্ত গাঁজার গাছ উদ্ধার করেন। এসময় সঙ্গে গাঁজা চাষী মিঠু মিয়াকে গ্রেফতার করেন। এদিকে, কঞ্চিবাড়ি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ- পুলিশ পরিদর্শক মোক্তারুল আলম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে অভিযান চালিয়ে কাপাসিয়া ইউনিয়নের লালচামার নামক তিস্তা নদীর খেঁয়া ঘাট এলাকা থেকে পাঁচার করে আনার প্রাক্কালে ১’শ ৫০ বোতল অফিসার চয়েসসহ আলামিন (২৭) কে গ্রেফতার করেন। এসময় মাদক পাঁচার কাজে ব্যবহৃত নৌকাটি জব্দ করেন তিনি।

এব্যাপারে কথা হলে পুলিশ পরিদর্শক মোক্তাতারুল আলম বলেন- কুড়িগ্রাম জেলা সদরের মন্ডল পাড়া গ্রামের মৃত চাঁদ মিয়ার পুত্র আলামিন, সোনা উল্ল্যাহ্র পুত্র তাইজুল ইসলাম, গলাকাঁটা গ্রামের ইমাম হোসেনের পুত্র ফইম উদ্দিন, অষ্ট আশি চরের জনৈক আব্দুর রশিদসহ আরো কয়েকজন মিলে ১’শ ৫০ বোতল ভারতীয় অফিসার চয়েস নৌকা যোগে লালচামার খেঁয়াঘাটে আসার প্রাক্কালে আলামিনকে আটক করা হয়। এসময় তার সহযোগী ৬/৭ জন নদীতে ঝাপ পালিয়ে যায়। এরা সকলেই দীর্ঘদিন থেকে বিদেশী মাদকদ্রব্য পাঁচার করে এনে ব্যবসা করে আসছিল। সকলেই কুড়িগ্রাম জেলা সদরের বিভিন্ন গ্রামের বাসিন্দা। এ ঘটনায় জব্দকৃত নৌকাটির আনুমানিক মুল্য ৪৫ হাজার ও অফিসার চয়েসের মুল্য হবে ৭৫ হাজার টাকা ধরা হয়েছে। এব্যাপারে থানায় সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা রুজু করা হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই