মেইন ম্যেনু

একনেক কমিটির সভা

সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকার ৫ প্রকল্প অনুমোদন

জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির সভায় তিন হাজার চারশ ৪৫ কোটি ১৭ লাখ টাকার পাঁচটি প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার একনেক কমিটির সভা শেষে পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এক সংবাদ সম্মেলনে পাস হওয়া পাঁচটি প্রকল্পের কথা তুলে ধরেন।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, মোট প্রকল্প বরাদ্দের মধ্যে সরকারি অর্থায়ন নয়শ ৪৫ কোটি ৬৪ লাখ টাকা এবং প্রকল্প সাহায্যের পরিমাণ দুই হাজার চারশ ৯৯ কোটি ৫৩ লাখ টাকা। পাঁচটি প্রকল্পের মধ্যে দুটি প্রকল্প নতুন এবং তিনটি সংশোধিত প্রকল্প। এরমধ্যে তিনটি প্রকল্প সম্পূর্ণ সরকারি অর্থায়নে এবং বাকি দুটি সরকারি ও প্রকল্প সাহায্য দিয়ে বাস্তবায়ন করা হবে।

পাঁচটি প্রকল্পের মধ্যে দুহাজার ছয়শ কোটি ৪৮ লাখ টাকা ব্যয়ে ‘তৃতীয় নগর পরিচালন ও অবকাঠামো উন্নতিকরণ (সেক্টর) (ইউজিআইআইপি)’ শীর্ষক সবচেয়ে বড় প্রকল্পটির অনুমোদন দেয়া হয়েছে। প্রকল্পটির বাস্তবায়নকাল ধরা হয়েছে জুলাই ২০১৪ থেকে জুন ২০২০ পর্যন্ত। স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের এলজিইডি প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে।

এ প্রকল্পের আওতায় দেশের ৩১টি পৌরসভায় দারিদ্র্য ও জেন্ডার বান্ধব নগর সুশাসন প্রতিষ্ঠা এবং উন্নত নগর অবকাঠামো তৈরির মাধ্যমে পরিসেবার উন্নয়ন, নির্বাচিত পৌরসভাসমূহে সমন্বিত ও সার্বিকভাবে সর্ববিষয়ে উন্নত পৌরসেবা, টেকসই আর্থিক ব্যবস্থা, জনগোষ্ঠীর অংশগ্রহণ, জবাবদিহিতা, স্বচ্ছতা ও নিয়ন্ত্রিত নগর উন্নয়ন ইত্যাদি নিশ্চিত করে সুশাসন ও উন্নত ভৌত অবকাঠামো সেবা নিশ্চিত করা হবে।

পাস হওয়া পাঁচ প্রকল্পের মধ্যে ৩৪ কোটি ৬৯ লাখ টাকা ব্যয়ে ‘নেত্রকোনা-ধর্মপাশা-জামালগঞ্জ-সুনামগঞ্জ-সিলেট সড়ক উন্নয়ন (নেত্রকোনা অংশ)’ প্রকল্পও রয়েছে। প্রকল্পটির বাস্তবায়নকাল ধরা হয়েছে জানুয়ারি ২০১২ থেকে জুন ২০১৫ পর্যন্ত। প্রকল্পটির মাধ্যমে নেত্রকোণা-ধর্মপাশা-জামালগঞ্জ-সুনামগঞ্জ-সিলেট সড়কের (নেত্রকোণা অংশ) উন্নয়ন সাধন করা হবে। প্রকল্পটি সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর (সওজ) বাস্তবায়ন করবে।

‘বিরিশিরি-বিজয়পুর স্থলবন্দর সড়ক নির্মাণ (মাদুপাড়া সংযোগসহ)’ প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হবে ৮০ কোটি ৬১ লাখ টাকায়। সম্পূর্ণ জিওবি অর্থায়নে সড়ক বিভাগের আওতায় সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে। প্রকল্পটির বাস্তবায়নকাল ধরা হয়েছে জানুয়ারি ২০১২ থেকে জুন ২০১৬ পর্যন্ত। প্রকল্পটির মাধ্যমে নেত্রকোণা জেলার দুর্গাপুর উপজেলায় মাদুপাড়া সংযোগসহ বিরিশিরি-বিজয়পুর স্থলবন্দর সড়ক নির্মাণের মাধ্যমে উন্নত সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা স্থাপন, পণ্য পরিবহণ ও বাণিজ্য সুবিধা সম্প্রসারণ ও আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন করা।

৩৪ কোটি ৯৮ লক্ষ টাকায় ‘সোলার প্যানেল স্থাপনসহ সমবায় ভবনের অসমাপ্ত অংশের ভৌত নির্মাণ’ শীর্ষক একটি প্রকল্পের অনুমোদন দেয়া হয়েছে একনেক সভায়। সম্পূর্ণ জিওবি অর্থায়নে পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের আওতায় সমবায় অধিদপ্তর প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে। প্রকল্পটির বাস্তবায়নকাল ধরা হয়েছে মার্চ ২০১৪ থেকে মার্চ ২০১৬ পর্যন্ত।

‘ন্যাশনাল এগ্রিকালচারাল টেকনোলজি (এনএটিপি): ফেজ-১’ শীর্ষক অপর একটি প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হবে ছয়শ ৯৪ কোটি ৪১ লাখ টাকা ব্যয়ে। জিওবি হিসেবে ৬৬ কোটি ৮৮ লাখ এবং প্রকল্প সাহায্য হিসেবে ছয়শ ২৭ কোটি ৫৩ লাখ টাকায় কৃষি এবং মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে। প্রকল্পটির বাস্তবায়নকাল ধরা হয়েছে জুলাই ২০০৭ থেকে ডিসেম্বর ২০১৪ পর্যন্ত।

প্রধানমন্ত্রী ও জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির চেয়ারপারসন শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আজকের সভায় পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল, অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী, ডাক, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন, পানিসম্পদমন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম.এ. মান্নানসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।






মন্তব্য চালু নেই