মেইন ম্যেনু

সালমানের কানে আবেদন পৌঁছে দিয়েছেন মিমি!

সালমান খানের সঙ্গে অভিনয়ের ইচ্ছা পোষণ করলেন টলিউডের ‘বোঝেনা সে বোঝেনা’ চলচ্চিত্র’খ্যাত অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী। এবার সালমানের সঙ্গে কাজ করে বলিউড দুনিয়া মাত করতে চান সুশ্রী কন্যা মিমি। ইতিমধ্যেই নাকি সালমানের কানে খবরটি পৌঁছেও দিয়েছেন মিমি নিজেই। অপেক্ষার প্রহর গুনছেন তিনি কখন তার প্রিয় নায়কের ডাক আর সান্নিধ্য পাবেন এই অভিনেত্রী।

আত্মবিশ্বাসী মিমি মনে করেন সালমান তার এই আবেদন ফেলতে পারবেন না! কারণ আবেদনময়ী বলতে যা বোঝায় সবই আছে তার মধ্যে। দরকার হলে এবার বেশখানিকটা খোলামেলা হতেও আপত্তি নেই তার। বলিউড দুনিয়ায় তো আর ঘোমটা মাথায় নাচ করা যায় না। এছাড়াও স্বপ্নের পুরুষ সালমান বলে কথা। প্রয়োজনে তার জন্য না হয় একটু উদার হলে দোষ কি তাতে।

বেশ কয়েক বছর আগের কথা তখন- মিমিকে দেখে ঋতুপর্ণ ঘোষ ভাবতেই পারেননি সে বাংলায় অভিনয় করতে পারবে। সেই মেয়ে এখন দেব-এর নায়িকা। আর্টফিল্ম ও বাণিজ্যিক’ধারা সবখানেই মিমির সমান পদচারনা। একটা সময় টেলিভিশন মারফত পাওয়া যায় কিছু অসাধারণ অভিনেতা-অভিনেত্রী। এরমধ্যে পায়েল সরকার, বিশ্বনাথ উল্লেখযোগ্য।

মিমি চক্রবর্তী তার মধ্যে অন্যতম। তিন বছর আগেও মিমিকে প্রথম দেখা যায় একটি সিরিয়ালে। সেসময় মিমি সবে এসেছে উত্তরবঙ্গ থেকে, এরআগে তিনি ছিলেন অরুণাচল প্রদেশে। আর তাইতো তেমন ভালো বাংলা ভাষা জানতেন না তিনি। কিন্তু মিমির মধ্যে ছিল স্মার্টনেস ও শেখার ইচ্ছা। সিরিয়ালটি শেষ হওয়ার পর ঋতুপর্ণ ঘোষের ধারাবাহিকে নায়িকা পুপের চরিত্রে প্রথমেই যার নাম আসে, তিনিই হলেন মিমি। এতে তাঁর সঙ্গে ছিলেন প্রসেনজিৎ।

এরপর ২০১২ সালে এই ধারাবাহিক বন্ধ হওয়ার পর প্রসেনজিৎ ঠিক করেন নতুনদের নিয়ে একটা সিনেমা নির্মাণ করবেন, আর সেই সিনেমায় থাকবে অর্জুন ও মিমি। সিনেমাটির নাম ‘বাপি বাড়ি যা’। আর এই সিনেমাটির মাধ্যমেই টালিউডের খাতায় নাম লিখান তিনি।

টালিউড’তো মাতালেন এবার বলিউড মাতাতে তাঁর স্বপ্নের পুরুষ সালমান খানের ডাক কবে পান দেখার বিষয় এটাই। হয়তো একদিন মিমি তাঁর স্বপ্নের নায়কের সাথে পাড়ি জমিয়ে বলিউড সাম্রাজ্য নিজেকে মেলে ধরবেন।






মন্তব্য চালু নেই