মেইন ম্যেনু

সাত কামরার বাড়িতে ৩১ এসি!

নয়াদিল্লির সাবেক মুখ্যমন্ত্রী শিলা দীক্ষিতের বাড়িতে নাকি ৩১টি এসি আর ২৫টি রুমহিটার ছিল। অথচ তার ওই সরকারি বাড়িটিতে কামরার সংখ্যা ছিল সর্বসাকুল্যে সাতটি। শুক্রবার এনডিটিভি এ খবর প্রকাশিত হওয়ার পর পাঠকদের চোখ কপালে ওঠে গেছে। এতগুলো এসি কোন কাজে লাগত- এ নিয়েই চলছে জল্পনা কল্পনা।

ভারতীয় সেন্ট্রাল পাবলিক ওয়ার্কস ডিপার্টমেন্ট সংক্ষেপে সিপিডব্লিউডি’র বরাত দিয়ে শুক্রবার এনডিটিভি এ খবর জানিয়েছে। তথ্য অধিকার আইনে সুভাষ আগারওয়াল নামে এক ব্যক্তির প্রশ্নের জবাবে এসব তথ্য জানিয়েছে সরকারি ওই দপ্তরটি। এছাড়া দিল্লির মোতিলাল নেহেরু সড়কের ওই বাড়িতে ১৫টি এয়ারকুলার, ১২টি পানি গরম করার যন্ত্র(গিজার) ও ১৬টি বাতাস বিশুদ্ধ করার যন্ত্রও ছিল।ভারতের সরকারি বাসভবনগুলোর তত্ত্ববাধান করে থাকে সিপিডব্লিউডি।

শিলা দীক্ষিত একটানা ১৫ বছর ধরে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী থাকার সময় ওই বাড়িতেই বসবাস করতেন। গত ডিসেম্বরের নির্বাচনে তার দল কংগ্রেস হেরে যাওয়ার পর তিনি ওই বাড়ি ছেড়ে আসেন। ভারেতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং সম্প্রতি ওই বাড়িতে উঠেছেন। তবে এর আগে বাড়ির সংস্কার বাবদ ৩৫ লাখ রুপি খরচ করতে হয়েছে ওই সংস্থাটিকে।

অবশ্য এর আগে দিক্ষীতের চাহিদা অনুযায়ীএসব বৈদ্যুতিক যন্ত্রপাতি ১৯২০ সালে নির্মিত ওই বাসভবনটিতে স্থাপন করতে ১৭ লাখ রুপি খরচ করতে হয়েছিল বলে জানিয়েছে সিপিডব্লিউডি।

সাম্প্র্রতিক লোকসভা নির্বাচনের আগে গত ১১ মার্চ ৭৬ বছরের শিলা দীক্ষীতকে কেরালা রাজ্যে গভর্নর হিসেবে নিয়োগ দেয় তৎকালীন কংগ্রেস সরকার। এখনো সেই দায়িত্বে বহাল রয়েছেন তিনি। বর্তমানে দিল্লির ফিরোজশাহ রোডে ২ হাজার বর্গফুটের একটি বেসরকারি ফ্লাটে বসবাস করছেন দিল্লির সাবেক এই মুখ্যমন্ত্রী।






মন্তব্য চালু নেই